বিষ্ণপুরে অ্যাম্বুলেন্স ধর্মঘটের ডাক, অনির্দিষ্ট কালের জন্য পরিষেবা বন্ধ

0
183

সংবাদদাতা, বাঁকুড়া :

বকেয়া বিল মেটানো ও একটি বিশেষ কোম্পানীর নতুন অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা বন্ধের দাবী জানিয়ে বাঁকুড়ার বিষ্ণপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অ্যাম্বুল্যানস ধর্মঘটের ডাক দিলেন চালক ও মালিকরা। অল বেঙ্গল নিশ্চয় যান অ্যাম্বুল্যান্স অপারেটরস্ ইউনিয়ন, বিষ্ণুপুর জেলা শাখার ডাকে এই ধর্মঘটে সমস্যায় পড়েছেন অসংখ্য রোগী ও তাদের আত্মীয়রা।

ঐ সংগঠনের তরফে দাবী করা হয়েছে, ২০১১ সাল থেকে বিষ্ণপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে তারা অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা দিয়ে আসছেন। দীর্ঘ সাত আট মাস তারা কোন বকেয়া টাকা পয়সা পাননি। স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে পুজোর ঠিক আগে একটি সংস্থার মাধ্যমে এই হাসপাতালে আরো দু’টি অ্যাম্বুল্যান্স দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তাদের আপত্তির কথা ও বকেয়া মেটানোর দাবী জানিয়ে বিষ্ণুপুর মহকুমাশাসককে লিখিতভাবে জানিয়েছেন বলে ঐ সংগঠন সূত্রে জানানো হয়েছে।

অল বেঙ্গল নিশ্চয় যান অ্যাম্বুল্যান্স অপারেটরস্ ইউনিয়ন, বিষ্ণুপুর জেলা শাখার পক্ষে শান্তিনাথ ব্যানার্জি বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে আমরা বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা দিয়ে আসছি। এখনো পর্যন্ত পরিষেবা নিয়ে সাধারণ মানুষের তাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই দাবী করে তিনি বলেন, সাত আট মাস ধরে আমরা কেউ কোন বকেয়া টাকা পাইনি। এই রকম একটা পরিস্থিতিতে একটি সংস্থার মাধ্যমে এই হাসপাতালে আরো দু’টি অ্যাম্বুল্যান্স দেওয়া হলো। বকেয়া টাকা না পাওয়ায় অনেকেই অ্যাম্বুল্যান্স কেনার টাকার কিস্তি পরিশোধ করতে পারছেননা। পুজোর মুখে এই অবস্থায় তারা সকলেই কমবেশী সমস্যায় পড়েছেন। ঐ সংস্থার অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা বন্ধ ও তাদের বকেয়া দ্রুত মেটানোর দাবী জানান তিনি। দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অ্যাম্বুল্যান্স ধর্মঘট চলবে বলে তিনি জানান।

এবিষয়ে বিষ্ণুপুরের মহকুমাশাসক মানস মণ্ডল বলেন, বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ১০২ পরিষেবায় আরো দু’টি অ্যাম্বুল্যান্স চালু করা হলো। এই নিয়ে বেসরকারী অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা যারা দেন তাদের আপত্তি ছিল। আমরা চাই সাধারণ মানুষ ঠিকমতো পরিষেবা পান, আর এরাও যেন ঠিকমতো কাজ পান। দু’টি বিষয়কেই সমানভাবে গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here