বহরমপুরের রবিনহুড অধীর, রাজীব কুমার থেকে এন আর সি ইস্যুতে মমতা-মোদিকে আক্রমন

0
100

সংবাদদাতা,মুর্শিদাবাদ:-

একদিকে অষ্টমীতে মাতোয়ারা সকলে, আর তারই মধ্যে বহরমপুর সাংসদ অধীর চৌধুরী কার্যত রাজীব কুমার ইস্যু থেকে শুরু করে, মমতা মোদির গটাপ গেম সহ এনআরসি ইস্যুতে ত্রিফলা আক্রমণ শানিয়ে সাংবাদিক বৈঠক সারলেন। এদিনের সাংবাদিক বৈঠকের শুরুতেই অধীর বাবু প্রাক্তন গোয়েন্দা পুলিশ কর্তা রাজিব বাবু কে কে নিয়ে শুরুতেই আক্রমণাত্মকভাবে বলেন,”উনি সিবিআই এর কাছে মুখ খুললেই তৃণমূল দলটি বাংলায় ধুলিস্যাৎ হয়ে যাবে,তাই সামাল দিতেই দিল্লিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তোষামোদের রাজনীতিতে নেমেছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়”।সাংসদ অধীর আরোও অভিযোগ করে বলেন,”আসলে প্রধানমন্ত্রী মোদী ও মমতার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ভারতবর্ষকে কংগ্রেস মুক্ত করা আর সেই জন্যেই মোদি বাবু মমতার ওপর রাজিব ইস্যুতে চাপ প্রয়োগ করতেই সিবিআইকে যেমন ব্যবহার করছে, তেমনি বাংলা থেকে কংগ্রেসকে মুছে ফেলতে মমতাও মুখ্যমন্ত্রীর সাথে হাত মেলাতে প্রস্তুত। আসলে পুরোটাই একটা গট আপ গেম।”। একের পর এক আক্রমণ এদিন শানান বরমপুরের রবিনহুড অধীর চৌধুরী। তিনি বলেন,”এতদিন মানুষ যাকে বাংলার অগ্নিকন্যা বলে জেনে এসেছে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন মোদির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মুখ হতে চেয়েছিল ভারতবর্ষব্যাপী তখন সকলেই তাকে গ্রহণ করতে শুরু করে। পুরোটাই একটা নাটক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখন দিল্লিতে গিয়ে মোদি আর অমিত সাহু কে হাতে-পায়ে ধরে সন্তুষ্ট করে রাজীব কুমার কে বাঁচানো মূল উদ্দেশ্য করে ফেলেছেন”। এমনকি অধীর খোঁচা দেন বিজেপির মুকুল রায় কেউ। সাংসদ বলেন,”এই মুকুল রায়ও সারদা কাণ্ডে জড়িত সেটা সকলেই জানেন। তাই সিবিআইকে দিয়ে একটা নিরপেক্ষতার খেলার পরিবেশ তৈরি করার জন্য তাকে কেবল জিজ্ঞাসা করা হচ্ছে মাত্র কখনোই গ্রেফতার করা হবে না এটাও নিশ্চিত প্রায়”। এই সবের মধ্যে অধীর চৌধুরী তার সাংবাদিক বৈঠকে এনআরসি ইস্যু নিয়েও একই ভাবে আক্রমণ চালান কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। তিনি বলেন,”এতদিন ধরে জোড়া ভারতের থাকলো তারা আদৌ ভারতীয় কিনা তা ঠিক করবে নরেন্দ্র মোদি সরকার। কোনভাবেই মানা যায় না আসলে এইভাবে ভারতের নাগরিকদের দেশ থেকে তাড়াতে চাই বেছে-বেছে এই কেন্দ্রীয় সরকার”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here