সিপিএমের পার্টি অফিসে যথেচ্ছ ভাঙচুর, রেহাই পেল না বিজেপিও

0
413

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ প্রথম ও দ্বিতীয় দফার ভোট আগেই শেষ হয়েছে, মঙ্গলবার রাজ্যে তৃতীয় দফার ভোট। সকাল থেকে ভোট শুরু হতেই অশান্তির বাতাবরণ ছড়িয়েছে রাজ্যজুড়েই। ইতিমধ্যে মুর্শিদাবাদে ভোটের হিংসার বলি হয়েছেন এক ব্যক্তি। সবথেকে অশান্ত মুর্শিদাবাদ সেখানে এক রাজনৈতিক কর্মীর মৃত্যু হওয়ার পাশাপাশি কংগ্রেসের এক পোলিং এজেন্টকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগও উঠেছে। তবে এসবের পাশাপাশি লোকসভা ভোট যুদ্ধে আক্রান্ত হচ্ছে বিভিন্ন দলের পার্টি অফিস ও কর্মী-সমর্থকেরাও। যেমন উত্তর ২৪ পরগনার হাড়োয়ায় সিপিএম পার্টি অফিসে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতিদের বিরুদ্ধে। জানা গেছে, হাড়োয়া থানার অন্তর্গত চাঁপালী ২ নং গ্রামপঞ্চায়েতের পুকুরিয়া গ্রামের সিপিএম পার্টি অফিসে কেউ বা কারা তালা ভেঙে ঢুকে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। চেয়ার, টেবিল এবং পার্টি অফিসে রাখা সমস্ত আসবাবপত্র ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন এলাকার সিপিএম কমরেড পল্লব সেনগুপ্ত। ঘটনার তীব্র নিন্দা করার পাশাপাশি দুস্কৃতিদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন সিপিএম। অন্যদিকে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিংয়ে বিজেপির দলীয় পতাকা পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক তৃণমূল কংগ্রেসকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযোগ, ক্যানিংয়ের সাতমুখী এলাকায় সোমবার রাতে কয়েক জন দুষ্কৃতি বিজেপির দলীয় পতাকা পুড়িয়ে দেয়। ঘটনায় ক্যানিং থানায় তৃনমূলের কয়েকজনে নামে বিজেপি সদস্যরা অভিযোগ জানালে তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে গোবিন্দ সর্দার নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। যদিও ঘটনার কথা অস্বীকার করে জেলার তৃণমূলের যুব সভাপতি শওকাত মোল্লা জানা, দল এই ধরণের কাজ করে না। মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছে দলের কর্মীকে।