“একবারই দুর্গাপুরে এসেছিলেন সুষমা স্বরাজ জী”, ২১ বছর আগের সেই স্মৃতিচারনায় চ্যানেল এই বাংলায়-র সম্পাদক

0
1552

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ ভারতীয় রাজনীতিতে নক্ষত্রপতন। মঙ্গলবার দীর্ঘ রোগভোগের পর দিল্লির এইমস হাসপাতালে হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ভারতের প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা দেশ, শোকে মুহ্যমান ভারতীয় রাজনীতি। মঙ্গলবার দিল্লির এইমস হাসপাতালে সুষমা স্বরাজের প্রয়ানের খবর প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে শোক জ্ঞাপন বার্তা আসতে শুরু করে রাজনীতিক মহল থেকে। উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরেই শারীরিক নানান রোগে ভুগছিলেন তিনি। ২০১৬ সালে কিডনি প্রতিস্থাপনের পর থেকে শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। আর সেই কারণেই ২০১৯ সালে রাজনৈতিক কর্মকান্ড থেকে নিজেকে সরিয়েও নিয়েছিলেন। কিন্তু তাসত্বেও সায় দিল না শরীর। মঙ্গলবারই গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় এইমসে ভর্তি করা হয়েছিল সুষমা স্বরাজকে। এরপর রাতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বুধবার সকালে তাঁর মরদেহ নিজ বাসভবনে আনা হয়। এরপর সেখান থেকে বেলা ১২টা থেকে ৩টে পর্যন্ত বর্ষীয়ান এই রাজনীতিকের মরদেহ শায়িত থাকে বিজেপির সদর দফতরে। সেখানে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানালেন সাধারণ মানুষ থেকে দলীয় কর্মীরা। সবশেষে বুধবারই দিল্লীর লোধি রোডের শ্মশানে পূর্ণরাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের এহেন অকাল প্রয়াণে গোটা দেশের সঙ্গে সঙ্গে শোকস্তব্ধ চ্যানেল এই বাংলায়-র সম্পাদক শ্রী মনোজ কুমার সিংহ মহাশয়। কারণ আজ থেকে ২১ বছর আগে প্রথমবার ও মাত্র একবারই দুর্গাপুরে এসেছিলেন সুষমা স্বরাজ। বিজেপির রথযাত্রার এক অনুষ্ঠানে দুর্গাপুরে এসে এক সাংবাদিক সম্মেলনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন তিনি। সেইসময় জাতীয়তাবাদ নিয়ে এক আলোচনায় চ্যানেল এই বাংলায়-র সম্পাদক মুখোমুখি এক টেবিলে বসে সুষমা স্বরাজ, লালকৃষ্ণ আডবানী, স্বর্গীয় বিষ্ণুকান্ত শাস্ত্রী, স্বর্গীয় তপন সিকদারের সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন দুর্গাপুর হাউসের কনফারেন্স হলে। সেইদিনের সেই স্মৃতি উসকে চ্যানেল এই বাংলায়-র সম্পাদক জানালেন, সুষমা জী-র প্রয়ান ভারতীয় রাজনীতির এক অপূরনীয় ক্ষতি। রাজনীতিবিদ ছাড়াও একজন মানুষ হিসেবেও সুষমা জী খুবই সহৃদয় ও দয়ালু ছিলেন। দেশের রাজনীতিতে সুষমা জী-র অবদান স্বর্নাক্ষরে লিখিত থাকবে। সেই দিন তাঁর সঙ্গে কথা বলার পর থেকে একপ্রকার তাঁর ফ্যানই হয়ে গিয়েছিলেন চ্যানেল এই বাংলায়-র সম্পাদক। সেইসময় তিনি বাম শাসিত পশ্চিমবঙ্গের অপশাসনের বিরুদ্ধেও সরব হয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর ভাষার মাত্রা কখনও তাঁর নিজস্ব গণ্ডীকে ছাড়িয়ে যায়নি। এহেন বর্ষীয়ান ব্যক্তিত্বের সাথে মুখোমুখি বসে দেশাত্ববোধ নিয়ে আলোচনা করার মত সৌভাগ্য হওয়ায় নিজেকে ধন্য মনে করছি। তাঁর এই অকাল প্রয়ানে নিজের খুব কাছের প্রিয়জনকে হারানোর বেদনা অনুভব করছি বলেই জানালেন চ্যানেল এই বাংলায়-র সম্পাদক শ্রী মনোজ কুমার সিংহ। সেইদিনের সেই আলোচনার কিছু টুকরো ছবি রইল আমাদের পাঠকদের জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here