সগরভাঙা হাউজিং কলোনীতে দোকানে চুরি, নেপথ্যে গভীর রহস্যের অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের

0
610

অমল মাজি, দুর্গাপুরঃ- দুর্গাপুর পুরসভার ২৯ নাম্বার ওয়ার্ড এলাকার সগর ভাঙা হাউজিং কলোনীতে একটি দোকানে চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল গভীর রাতে কলোনির হাউজিং স্কুলের সামনে সুব্রত পালের ভ্যারাইটি স্টোর দোকানের উপর উঠে এডভেস্টরের চাল সরিয়ে দোকানের ভেতর ঢুকে চোরেরা চুরি করে দোকানের ক্যাশবাক্সে থাকা নগদ ৯০০০ টাকা সহ দোকানে থাকা মূল্যবান দ্রব্য সামগ্রী। দোকানদার সুব্রতবাবু বলেন, প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকার মাল চুরি হয়েছে। তৎক্ষনাৎ সুব্রতবাবু এই চুরির বিষয়ে কোকওভেন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সুব্রতবাবু বলেন, পুলিশ সঠিক তদন্ত করে চোরদের ধরে উপযুক্ত শাস্তি দিক। এবং সুব্রতবাবুর দোকান থেকে যে সব মাল চুরি গেছে সেগুলি ঠিকঠাক ফেরত পাওয়ার আবেদন জানিয়েছে। অন্যদিকে পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে।

উল্লেখ্য, এই কলোনিতে গত দুইমাস ধরে নবীন বসিয়াল এবং মনোজ থাপা নামে দুই নেপালি যুবক নাইট গার্ডের কাজে নিযুক্ত রয়েছে। তা সত্বেও কিভাবে দোকানে চুরির ঘটনা ঘটলো তাই নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। স্থানীয়দের বক্তব্য, গত এক মাসের মধ্যে এই কলোনির গ্রাফাইট-গোলপার্কের কাছে একটি মোবাইল দোকানে, এম ব্লকে বাবলু পাল এবং বিপদ তারনের দুটি দোকানে, মাঝের মোড়ে একটি পানের দোকানে কয়েকদিন অন্তর অন্তর পরপর চুরির ঘটনা ঘটে এর নেপথ্যে অন্য কোন যোগসূত্র আছে সেই সন্দেহে নাইট গার্ডে নিযুক্ত থাকা দুই নেপালি যুবকে ধরে থানায় নিয়ে গিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। স্থানিয়দের বক্তব্য, পুলিশ ওই দুই নেপালি যুবককে জেরা করলেই অনেককিছুই বেরিয়ে পড়বে। স্থানীয় মানুষদের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দুই নেপালি যুবককে থানায় আটকে করে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। বাইরে থেকে আসা ওই দুই নেপালি যুবককে নাইট গার্ড কাজে নিযুক্ত করার নেপথ্যে কার কি উদ্দেশ্য রয়েছে তাও তদন্ত করার দাবি তুলেছে কলোনির বাসিন্দারা।

জানা গেছে, কোয়ার্টার পিছু ৫০ টাকা করে তুলে নেপালি ওই নাইট গার্ডদের দেওয়া হতো। অবশ্য ওই দুই নাইট গার্ড পুলিশকে জানিয়েছে, তারা মাসে ৫ হাজার করে পেতো। এখন প্রশ্ন বাকি টাকা কোথায় যেতো তা নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে এক গভীর রহস্য দাঁনা বেঁধেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here