বর্ধমানের গ্রামে তৃণমূল কর্মীকে খুন করে টেনে হিচড়ে পুকুরের দেহ ফেলল দুষ্কৃতীরা

0
129

সংবাদদাতা বর্ধমান:- পার্টি অফিস থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিশংস ভাবে খুন হলেন বর্ধমানের দক্ষিণ দামোদর এলাকার এক তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী । ধারালো চপার দিয়ে তার মাথায় আঘাত করা মাত্রই মোটরবাইক থেকে তিনি পড়ে যান। তারপর চলে এলোপাতাড়ি আঘাত । কুপিয়ে এভাবে খুন করার পর দুষ্কৃতীরা অনিল মাঝি {৪৭} নামের ওই তৃণমূল কর্মীর ক্ষত-বিক্ষত দেহটিকে ১০০ মিটার টেনে হিঁচড়ে নিয়ে গিয়ে একটি পুকুরে ডুবিয়ে দেয়। তার মোটরসাইকেলটি অন্য একটি পুকুরে ফেলে তাই পালায়।
পূর্ব বর্ধমানের মাধবদিহি থানা এলাকার আলমপুর গ্রামে বাড়ি অনিলের। সক্রিয় তৃণমূল কর্মী অনিল রোজ রাত্রে সাড়ে দশটা নাগাদ মাধবদিহি পার্টি অফিস থেকে বাইক নিয়ে ঘরে ফিরতেন। গতকাল আলমপুর যাওয়ার রাস্তার বাকে ৫ যুবক তাকে আক্রমণ করে বলে জানান স্থানীয় বিধায়ক নেপাল ঘড়ুই। বুধবার সকালে রাস্তায় রক্তের দাগ দেখে গ্রামবাসীরা অনিলের দেহ খুঁজে পান পুকুরে। ঘটনাস্থলে বর্ধমান থেকে এসে পৌছাই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রিয়ব্রত রায় । তার নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী গ্রামে আসে। এর পরেই আসেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। স্বপন দেবনাথ অভিযোগ করেন বিজেপির জামা পরা সিপিএমের দাগি দুষ্কৃতকারীরা আমাদের সংগঠক অনিল কে হত্যা করল। বিজেপি অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছে । উল্টো দলের জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দীর দাবি অনিল খুন হয়েছে ওদের দলের গোষ্ঠীর দ্বন্দ্বের কারণে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত করা হয়েছে । কি কারণে খুন বোঝা যাচ্ছে না , তাই এখনই কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here