জলে থই থই হল বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের স্টোর ও রেকর্ড রুম

0
162

সংবাদদাতা, বর্ধমান :-

জলে থই থই হল বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের স্টোর ও রেকর্ড রুম। জলে মাটিতে থাকা বেশকিছু চিকিৎসা সরঞ্জাম ভিজে যায়। সেগুলি নষ্ট হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা হাসপাতালের কর্মীদের। দীর্ঘক্ষণ গোঁড়ালি উচ্চতায় জল দাঁড়িয়ে থাকে ঘরের মধ্যে। ফলে, সমস্যায় পড়েন কর্মীরা। বেশ কিছুক্ষণ ঘরের মধ্যে জল দাঁড়িয়ে থাকে। পরে, পাম্পের সাহায্যে জল বের করা হয়। তার আগে অবশ্য হাসপাতালের কর্মীরা বালতি করে জল বের করার চেষ্টা করেন। কর্মীদের দাবি, এই সমস্যা দীর্ঘদিনের। ঘরে জল দাঁড়িয়ে থাকার কারণে সেখান থেকে ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগ সরানো হয়েছে। তবে, এখনও ইক্যুইপমেন্ট স্টোর, মেডিক্যাল রেকর্ড, অের্থা আউটডোর ও ফাের্মসি বিভাগে সমস্যা রয়ে গিয়েছে। মাঝেমধ্যেই ঘরে জল ঢুকে পড়ায় সমস্যায় পড়েন বিভাগীয় কর্মীরা। সমস্যায় পড়তে হয় রোগীদেরও। স্টোর রুমে মূল্যবান চিকিৎসা সরঞ্জাম থাকে। জলে তা নষ্ট হয়। স্টোর রুমে গুরুত্বপূর্ণ নথি থাকে। তাও নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে। পাশের একটি নালা থেকে জল ভিতরে ঢুকে যায় বলে কর্মীদের দাবি। বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বারবার জানিয়েছেন তাঁরা। রোগীকল্যাণ সমিতির মিটিংয়েও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তারপরও সমস্যার সমাধান হয়নি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবশ্য সমস্যার কথা মেনে নিয়েছেন। তবে, জলে চিকিৎসা সরঞ্জাম নষ্ট হওয়ার কথা মানতে চায়নি কর্তৃপক্ষ।


সোমবার হাসপাতালের স্টোর ও রেকর্ড রুমে আচমকা জল ঢুকে যায়। দীর্ঘক্ষণ জল দাঁড়িয়ে থাকে ঘরে। কর্মীরা সকালে এসে ঘরের মধ্যে জল দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেন। বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানান তাঁরা। হাসপাতালের কর্মীরাই বালতি দিয়ে জল বের করার চেষ্টা করেন। তা সফল না হওয়ায় পাম্প দিয়ে জল বের করা হয়। তার আগেই অবশ্য মেঝেয় রাখা চিকিৎসা সরঞ্জাম ভরতি পিচবোর্ডের কার্টুন জলে ভিজে যায়। জল সরার পরও সেগুলি ওই অবস্থাতেই মেঝেয় রাখা থাকে। জলে সরঞ্জাম নষ্ট হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন কর্মীরা। হাসপাতালের এক কর্মী বলেন, পাশের একটি নালা থেকে জল ঘরে ঢোকে। নালাটি নিয়মিত পরিষ্কার করা হয়না। তাছাড়া, ঘরগুলিও স্যাঁৎস্যাঁতে। যে কারণে চিকিৎসা সরঞ্জাম মাঝেমধ্যেই নষ্ট হয়। রেকর্ডও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। হাসপাতালের ডেপুটি সুপার ডাঃ অমিতাভ সাহা বলেন, স্টোর ও রেকর্ড রুমে মাঝেমধ্যেই জল ঢুকে পড়ে। বৃষ্টি হলে সমস্যা বাড়ে। ড্রেনেজ ব্যবস্থার ত্রুটির কারণেই সমস্যা তৈরি হয়েছে। বিষয়টি স্বাস্থ্য দপ্তরে জানানো হয়েছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য কিছু পরিকল্পনা রয়েছে। ৪টি বিভাগ সরানোর জন্য একটি প্রস্তাব স্বাস্থ্য ভবনে পাঠানো হয়েছে। তা অনুমোদন হয়েছে। নতুন ভবন তৈরি হলে বিভাগগুলি সেখানে নিয়ে যাওয়া হবে। তারপর কোনও সমস্যা থাকবে না। ড্রেনেজ সমস্যার বিষয়টি পূর্ত দপ্তরকে জানানো হয়েছে। জল বের করার জন্য সবসময় একটি পাম্পের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here