গঙ্গাজলঘাটির লটিয়াবনি অঞ্চলে শুরু হলো ১০০ দিনের কাজ খুশি গ্রামবাসীরা

0
485

সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ- লকডাউন করোনা গোটা বিশ্বের সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রাকে কেমন যেন পাল্টে দিয়েছে। নীল আকাশে উড়ে বেড়ানো চাওয়া-পাওয়াগুলো এক নিমেষে শেষ হয়ে গিয়েছে। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের জন্য দেশজুড়ে চলছে লকডাউন গৃহবন্দী থেকে কাজ হারিয়ে আর্থিক সঙ্কটের সম্মুখীন হতে হয়েছে দিন আনা দিন খাওয়া সাধারণ মানুষগুলোকে। যদিও রাজ্য সরকার সর্বদায় সাধারণ মানুষের পাশে থাকার জন্য একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে শুরু হয়েছে বিনামূল্যে রেশন প্রদান। ফলে উপকৃত হয়েছেন রাজ্যের সাধারণ মানুষ ।

আর এমতাবস্থায় বাঁকুড়া জেলার গঙ্গাজলঘাটি ব্লকের লটিয়াবনি অঞ্চলের দুর্লভপুর লাগোয়া হাঁস পাহাড়ি জঙ্গলে আজ থেকে শুরু হলো ১০০ দিনের কাজ স্বাভাবিকভাবেই খুশির হাওয়া সাধারণ মানুষের মধ্যে । লকডাউনের কারণে দীর্ঘদিন ধরে কাজ হারিয়ে আর্থিক সংকটে পড়েছিলেন তারা । অবশেষে গঙ্গাজলঘাটি ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতির নিমাই মাঝির নেতৃত্বে ১০০ দিনের কাজ শুরু হলো ।

মূলত এই এলাকা জঙ্গল লাগোয়া হওয়াতে বেশিরভাগ সময়ে হাতির উপদ্রবে সাধারণ মানুষকে নানান ধরনের সমস্যা সম্মুখীন হতে হয় । ফসলের ক্ষয়ক্ষতি থেকে বসতবাড়ির ক্ষয়ক্ষতি এমনকি মৃত্যু পর্যন্ত হয়েছে অনেকের । সেই দিকে নজর দিয়ে লোকালয়ে যাতে হাতি প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য তৈরি করা হচ্ছে একটি ড্রেন , ফলে ড্রেন পেরিয়ে লোকালয়ে হাতির প্রবেশ করা অনেকটাই কঠিন হবে বলে মনে করছেন সকলেই । ১০০ দিনের কাজ শুরু হওয়ায় কিছুটা হলেও আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হতে পারবেন তারা ফলে মিটবে সংসারের অভাব-অনটন ।

গঙ্গাজলঘাটি ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি ও লটিয়াবনি অঞ্চল সভাপতি- নিমাই মাজী বলেন , এই মুহূর্তে ১২০০ জন জব কার্ড হোল্ডারদের নিয়ে ১০০ দিনের কাজ শুরু হয়েছে। প্রতিটি জব কার্ড হোল্ডারকে একশো দিন করে কাজ দেওয়া হবে এর ফলে আর্থিকভাবে তারা উপকৃত হবেন ।

এক জব কার্ড হোল্ডার বলেন, দীর্ঘদিন ধরে গৃহবন্দী থেকে কাজ করতে পারছিলাম না ফলে আর্থিক সমস্যায় পড়তে হয়েছিল আমাদের । অবশেষে ১০০ দিনের কাজ পেয়ে আমি অত্যন্ত খুশি । এর ফলে আমার সংসারের আর্থিক অনটন অনেকটাই কমবে । আমি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এর জন্য ধন্যবাদ জানাই ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here