করোনা সংকটে কাঁদছে মায়ের মন তাই দান করলেন নিজের জমানো টাকা

0
732

নিজস্ব সংবাদদাতা দুর্গাপুরঃ- সারা রাজ্য জুড়ে চলছে লকডাউন। সারাদেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা। মৃত্যু ঘটছে একাধিক। এরই মধ্যে গৃহবন্দি মানুষজন এরা না খেতে পেয়ে যাতে মারা না যায় সেই জন্যে সতর্ক দৃষ্টি রেখেছে জেলা ও রাজ্য প্রশাসন। শুধু সরকারি উদ্যোগে এই নয় বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও রাজনৈতিক কর্মীরা এগিয়ে এসেছেন মানুষের সাহায্যে। বিভিন্ন স্তরের মানুষ নিজের সঞ্চিত অর্থ থেকে অল্প অল্প টাকা দান করছেন মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে যাতে এই করোনাভাইরাস মোকাবেলায় মুখ্যমন্ত্রীর হাত শক্ত করা যায়।

সন্তানের কষ্ট একমাত্র মা ই বুঝতে পারেন সব থেকে বেশি। তাই হয়তো মায়ের মন কেঁদে উঠেছে সেই সব দরিদ্র মানুষদের জন্য যারা পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে গৃহবন্দি অবস্থায় অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন সরকারি সাহায্যের আশায় বুক বাঁধছেন তারা। সেইসব মানুষজনকে সাহায্য করতে এবার এগিয়ে এলেন ২ প্রবীণ মাতা। দুর্গাপুরের ৩০নম্বর ওয়ার্ডের করঙ্গপাড়ার বাসিন্দা কল্পনা কেশ টিভির পর্দায় অনাহার মানুষদের কষ্ট দেখে তার হৃদয় কাঁদতে থাকে। তিনি এলাকার বিধায়ক ও পাড়ার ছেলে বিশ্বনাথ পারিয়ালকে বাড়িতে ডেকে অল্প অল্প করে সারা মাসের খরচা থেকে নিজের জন্য কিছু জমিয়ে রাখতে টাকা থাকে ৫০০১/- টাকার একটি চেক তুলে দেন তার হাতে মুখ্যমন্ত্রীর আপৎকালীন ত্রাণ তহবিলে দান এর উদ্দেশ্যে।

শুধু তিনিই নয় আর একজন সহৃদয় মহিলা যার নাম লতিকা কেশ তিনিও তার সঞ্চিত অর্থ থেকে ১০,০০১/- টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করলেন এলাকার বিধায়ক ও পাড়ার ছেলে বিশ্বনাথ পারিয়ালকে বাড়িতে ডেকে। তাদের মতন মায়েদের আশীর্বাদ যে রাজ্যের মানুষের প্রতি আছে , সেই রাজ্যের মানুষ কখনো না খেতে পেয়ে মরবে না এই কথাটা হ্লপ করে বলা যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here