মুর্শিদাবাদে শুটআউট, গুলিবিদ্ধ অষ্টম শ্রেনীর ছাত্র

0
572

সংবাদদাতা, মুর্শিদাবাদঃ- ফের শুটআউট চলল মুর্শিদাবাদে। এই শুটআউটে গুলিবিদ্ধ হল এক অষ্টম শ্রেনীর ছাত্র। এদিন কাকার সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন ওই কিশোর। তখনই সে গুলিবিদ্ধ হয়। কিশোরের কাকা হলেন পেশায় একজন স্বর্ণ ব্যবসায়ী। দুস্কৃতীরা ছিনতাইয়ের লক্ষ্যেই কাকা এবং ভাইপোর পথ আটকায়। ঠিক তখনই দুস্কৃতীদের গুলিতে জখম হয় ওই কিশোরটি। ওই কিশোরের কাকা উৎপল সেন বহরমপুরের খাগড়া এলাকার বাসিন্দা। তার দৌলতাবাদে একটি সোনার দোকান রয়েছে। প্রায় প্রত্যেকদিন রাতেই ভাইপোকে নিয়ে স্কুটি করে তারা বাড়ি ফেরেন। তাই এদিন রাতেও ভাইপোকে নিয়ে স্কুটি করে দোউলতাবাদ থেকে খাগড়ার বাড়িতে ফিরছিলেন উৎপল বাবু। ঠিক সেইসময় বালিরঘাট এলাকায় বেশ কয়েকজন দুস্কৃতী কাকা এবং ভাইপোর পথ আটকায়। তৎক্ষনাৎ স্কুটি থেকে তারা পড়ে যান। দুস্কৃতীদের দেখেই আতঙ্কে দৌড়াতে থাকেন কাকা ও ভাইপো। অন্যদিকে দুস্কৃতী দল কাকা ও ভাইপোর পিছনে ধাওয়া করতে করতে দেদার গুলি চালাতে থাকে। অল্পের জন্য প্রানে বাঁচেন ব্যবসায়ী উৎপল সেন। তবে তার ভাইপোর পেটে গুলি লাগে। রক্তাত্ত অবস্থায় রাস্তার ওপর পড়ে থাকে ওই কিশোর। তীব্র যন্ত্রনায় কাতরাতে থাকে অষ্টম শ্রেনীর ছাত্র। কাকা-ভাইপোর চিৎকারে স্থানীয় এলাকাবাসী ছুটে আসে। অন্যদিকে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পলাতক হয় দুস্কৃতীরা। এরপর স্থানীয় এলাকাবাসীরা ওই কিশোর কে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল হাসপাতালে ভর্তি করে। আপাতত কিশোরটি ওই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন। তবে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে উৎপল বাবু কে। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনায় এখনও পর্যন্ত আতঙ্কে ভুগছে সেন পরিবার। পরিবারের তরফ থেকে বলা হয়েছে লুঠের উদ্দেশ্যেই এই হামলা করা হয়েছে। তবে এই ঘটনার সঙ্গে পরিচিত কেউ যুক্ত আছে কিনা তাও এখনও স্পষ্ট নয় উৎপল বাবুর পরিবার। পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করলেও কাউকেও এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেন নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here