দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানায় চাকরি দেওয়ার নামে ৬২ লক্ষ টাকা প্রতারনার অভিযোগ

0
7295

সোমনাথ মুখার্জী, অন্ডালঃ ফের চাকরির নামে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ। অন্ডালের বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রায় ১৫ জনকে দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানায় চাকরী পাইয়ে দেবার নাম করে ৬০ লক্ষ টাকারও বেশি আর্থিক প্রতারনার অভিযোগ। দুর্গাপুরের কাদা রোডের বাসিন্দা ওয়াসিম আক্রম নামে এক ব্যক্তি প্রায় ৬২ লাখ টাকার ঘোটালা করে । অভিযোগ কারীদের দাবী এই আক্রম ব্যক্তির সঙ্গে আরও কয়েকজন জড়িত আছে ,তাদের মধ্যে CISF এর একজন উচ্চপদস্থ আধিকারিকের জড়িত থাকার কথাও প্রকাশ্যে এসেছে। অভিযোগকারী মৌলানা গিয়াসুর রহমান বলেন, কাদারোডের বাসিন্দা ওয়াসিম আক্রম প্রথমে তার সঙ্গে বন্ধুত্ব করে যে, তিনি ডিএসপিতে চাকরী পাইয়ে দিতে পারেন। এইভাবে প্রথমে একজন ও পরে এই ভাবে আরো প্রায় ১৪ জনের থেকে প্রায় ৬২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেন । দিনের পর দিনের চাকরি না হওয়ায় সন্দেহ হয় তাদের। খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন কাদা রোডের ওই ব্যক্তি প্রতারক। তার কাজই চাকরির নামে লোকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে চম্পট দেওয়া। নিরুপায় হয়ে চাকরি পাবার আসায় সর্বস্ব খুইয়ে টাকা দিয়ে প্রতারিত হায়েছেন তারা। তাই এই বিষয়ে অন্ডাল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়েই তৎপর অন্ডাল থানার পুলিশ অভিযুক্ত ওয়াসিম আক্রমকে গ্রেপ্তার করে। অভিযোগকারী গিয়াসুর রহমানরা জানান অভিযুক্ত আক্রমের সঙ্গে CISF এর পোশাক পরিহিত এক ব্যক্তিও আসতেন টাকা নেবার সময়। সেই ব্যক্তির কাছে পিস্তলও থাকত বলে জানান অভিযোগকারীরা। তারা ভেবেছিলেন নিশ্চয় তারা কোনো প্রভাবশালী ব্যক্তিদের চাকরির জন্য টাকা দিয়েছেন। কিন্তু স্বপ্নভঙ্গ হতে বেশি দেরি হয়নি চাকরির জন্য নিঃস্ব হয়ে টাকা দেওয়া ব্যক্তিদের। তাদের একটাই দাবি চাকরী নয় তারা তাদের টাকা ফেরৎ চান ও দোষীদের কঠিন শাস্তি চান । ধৃত জালিয়াত ব্যক্তি ওয়াসিম আক্রম কে আজ অন্ডাল থানার পুলিশ দুর্গাপুর আদালতে তোলে। পুলিশ সূত্রের খবর আদালতের কাছে ব্যক্তির ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আর্জি জানাবে অন্ডাল থানার পুলিশ । কারণ অভিযুক্ত ওয়াসিম আক্রম এর সাথে আর কারা কারা এই কারবারে জড়িত আছে অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করা,এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত মূল পান্ডায় বা কে তাকে খুঁজে বের করা। পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে অন্ডাল থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here