কুয়েতে কাজ করতে গিয়ে চরম লাঞ্চনার শিকার আসানসোলের এক দম্পতি

0
850

সংবাদদাতা, আসানসোলঃ- কুয়েতে কাজ করতে গিয়ে চরম লাঞ্চনার শিকার হলেন আসানসোলের এক দম্পতি। এই দম্পতির কুয়েতে কাজের পরিবেশ পছন্দ হচ্ছিল না তাই এই দম্পতি সেখানে কাজ না করার সিদ্ধান্ত নেয় আর তাতেই এই বিপত্তি। দম্পতির অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গেছে, কুয়েতে যে হোটেলে তারা কাজের জন্য গিয়েছিলেন সেই কোম্পানি তাদের পাসপোর্ট কেড়ে রেখে দেয়। এমনকি ওই দম্পতির কাছে ছিল না পর্যাপ্ত পরিমান টাকা এবং খাবার।
গত পাঁচ বছর ধরে কুয়েতের এক হোটেলে কাজ করছেন আসানসোলের মহিশীলা কলোনির এলাকার বাসিন্দা সূর্যসারথী বাগ। বছর খানেক পূর্বে আসানসোলেরই বাসিন্দা মহাশ্বেতার সঙ্গে সূর্যসারথী বাবু’র বিয়ে হয়। এরপরে নভেম্বর মাসে এই দম্পতি কুয়েতে চলে যান। কিছুদিন আগে কুয়েতে কোম্পানী পাল্টে নতুন একটি হোটেলের কাজে যোগ দেন সূর্য বাবু। সূর্য বাবু’র বাবা অচিন্ত্যকুমার বাগ বলেন, সূর্য আমাকে অনেকদিন ধরেই বলছিল হোটেলটির পরিবেশ একেবারেই ভালো নয়। এমনকি সূর্য বাবু কে হোটেলে হুমকির মধ্যে দিয়েও কাজ করতে হত। তাই সূর্য বাবু স্ত্রী কে নিয়ে গিয়ে যথেষ্ট নিরাপত্তার অভাব অনুভব করছিলেন। তাই বাধ্য হয়ে সূর্য বাবু ওই হোটেলের কাজ ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু এরেপরেই আসল সমস্যার শুরু হল। সূর্য বাবু ভিডিও কলে তাঁর বাড়িতে জানান, হোটেল কর্তৃপক্ষ আমাদের দুজনেরই পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করে রেখে দিয়েছে। এমনকি কুয়েতে যে বাড়িতে তারা থাকতেন সেখান থেকে তাদের বের করে দেওয়া হয়েছে।
ইতিমধ্যেই অবস্থা বেগতিক দেখে সূর্য বাবু কুয়েতে ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ভারতীয় দূতাবাসের বিভাগ থেকে সূর্যকে লেবার কোর্টে মামলা রুজু করতে বলা হয়। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র আপ্ত সহায়ক ধর্মেন্দ্র কৌশল বলেন, “সূর্য বাবু’র মেল আমাদের কাছে পৌঁছেছে আমরা এরপরে যোগাযোগ করি কুয়েতের ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে। আমরা ওই দম্পতির সব রকম সমস্যার কথা জানাই ভারতীয় দুতাবাস কে। কুয়তে শুক্রবার এবং শনিবার ছুটি থাকে তাই একটু সমস্যা হচ্ছে”। তবে খুব তাড়াতাড়ি এই সমস্যার সমাধান হবে বলে জানিয়েছেন ধর্মেন্দ্র বাবু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here