নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য্যর মেয়াদও বাড়িয়েছেন এই মোনালিসা?

0
456

বিশেষ সংবাদদাতা, আসানসোল:– দ্য ভিঞ্চির মোনালিসা নন, ইনি পার্থর মোনালিস। তাতে কি? এতেই কাঁপিয়ে দিচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়। এখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য থেকে মালি সকলেই সমঝে চলেন মোনালিসাকে। তার রূপে গুণে যে মুগ্ধ রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষা মন্ত্রী।

নদীয়ার মোনালিসা দাস আসানসোলের কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের শিক্ষক। বিবাহ বিচ্ছিন্না এই মোনালিসার বিস্তর কদর বিশ্ববিদ্যালয়ে। সময় সময়ে এখানকার শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীরা প্রায় সকলেই বুঝে গেছিলেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বেশ ‘মাখো মাখো’ সম্পর্ক এই দিদিমনির। সকলের সামনেই শিক্ষামন্ত্রীকে ‘পার্থদা’ বলে সম্বোধন করতেন অনায়াসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সাধন চক্রবর্তী নিজেও তার চাকরির মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য সেই মোনালিসার কাছেই দরবার করেন, তা বিশ্ববিদ্যালয়ের বহু শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীর জানা আছে। মোনালিসার থেকে নিজেকে গুটিয়ে রাখেন সাধন। এমনিতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী বা শিক্ষা কর্মীদের সাথে প্রায়শঃই দুর্ব্যবহার এবং অসম্মানসূচক আচরণের চাপা অভিযোগ সাধনের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় গেলেই শোনা যায়। তার উন্নাসিকতার চর্চাও আসানসোলের সামাজিক-রাজনৈতিক মহলে রয়েছে। সাধনের মেয়াদ যাতে আর বাড়ানো না হয় তার জন্য রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের একাংশ উপরমহলে জানিয়েওছিলেন বলে জানা যায়। তবে, শেষ পর্যন্ত মোনালিসার রহস্যময় হাসির চাবিকাঠি ব্যবহার করেই এ যাত্রায় সাধনের রক্ষে হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে। এখন মোনালিসা কাণ্ডে সাধনের প্রতিক্রিয়া জানতে বারবার ফোন করা হলেও নিজেকে লুকিয়ে রাখাই শ্রেয় মনে করে ফোন ধরেনি এই উপাচার্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here