রেলের উচ্ছেদ নোটিশের প্রতিবাদে আন্দোলনের প্রস্তুতি

0
440

সংবাদদাতা, আসানসোলঃ- কলকাতা-লুধিয়ানা পণ্য করিডর বা ইস্টার্ন ডেডিকেটেড ফ্রেট করিডরের জন্য জবরদখল জমি অধিগ্রহণ শুরু করেছে পূর্ব রেল। তারই অঙ্গ হিসেবে আসানসোল রেলপার এলাকায় উচ্ছেদের নোটিস দিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। আর রেলের এই উচ্ছেদের প্রতিবাদে শুরু হয়েছে আন্দোলন। প্রসঙ্গত রেলের এই এলাকায় গড়ে উঠেছে বসতি দোকান বাজার। এখন হঠাৎ করে উচ্ছেদের নোটিশে বিপাকে পড়েছে রেলের জমিতে দীর্ঘদিন ধরে বসবাসকারী মানুষজন। পুনর্বাসনের দাবিতে সরব হয়েছেন স্থানীয়রা।

সোমবার রাতে রেলের জমি অধিগ্রহণ আইনের উচ্ছেদ দু’নম্বর ধারায় লাগু করার দাবিতে এক মশাল মিছিল করে রেলপার ট্রেডার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা। তাদের দাবি রেলপারের সমস্ত দোকানের জন্য পুনর্বাসন ব্যবস্থা করতে হবে। রেলপার ট্রেডার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক আশিস কৃষ্ণ চ্যাটার্জী বলেন, ” ইস্টার্ন ডেডিকেটেড ফ্রেট করিডরের জন্য জমি অধিগ্রহণ করছে রেল। যার ফলে আসানসোল রেলপারের প্রায় চারশো স্থায়ী ও অস্থায়ী ব্যাবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এই নিয়ে গত ৮ বছর ধরে আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের মুল দাবি ব্যাবসায়িদের পুনর্বাসন ও উপযুক্ত ক্ষতিপূরন।” তিনি জানান তাদের এই দাবি পূরন না হলে তারা আত্মহত্যার পথ বেছে নেবেন।

অন্যদিকে গতকাল সকালে রেলের উচ্ছেদ নোটিশের প্রতিবাদে ডিআরএম অফিসের সামনে রেলপারের বাসিন্দাদের নিয়ে বিক্ষোভ দেখায় আসানসোল উত্তর ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্ব। বিক্ষোভের নেতৃত্ব দেন আসানসোলের ডেপুটি মেয়র দ্বয় অভিজিৎ ঘটক ও ওয়াসিমুল হক।

এদিন অভিজিৎবাবু জানান, রেলের এই উচ্ছেদ নোটিসের প্রতিবাদে তারা ডি আর এম এর সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন। তবে তাদের সাথে ডি আর এম দেখা করেননি। রেল গরীব মানুষদের বঞ্চিত করে উচ্ছেদের পরিকল্পনা করছে। এতে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষের রোজগার বন্ধ হয়ে যাবে। পাশাপাশি তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন যতক্ষণ না পুনর্বাসন দেওয়া হচ্ছে ততক্ষণ উচ্ছেদ করা চলবে না। যদি রেল প্রশাসন এটি মেনে নেয় তো ভালো, যদি না মেনে নেয় তাহলে বৃহত্তর আন্দোলনের পথে এগোবো। পাশাপাশি তিনি সবসময় রেলপারের বাসিন্দাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here