১০ মাস বিরতির পর রবিবারই ফের ট্যুইট যুদ্ধ শুরু বাবুল-জীতেন্দ্র’রঃ চর্চা আসানসোলে

0
941

বিশেষ প্রতিনিধি, আসানসোল:- ফুটবল মাঠের হাফ-টাইমের পর দিক বদলের মতো’ই বিধানসভা ভোটের আগে পিছে দলবদল করেছেন বাবুল-জীতেন্দ্র, যাদের তপ্ত বাকযুদ্ধ, ট্যুইট পাল্টা ট্যুইটে সরগরম থেকেছে রাজ্য-রাজনীতিও। ভোটের পর মুখ শুকিয়ে প্রায় গুটিয়ে যাওয়া জীতেন্দ্র আর মন্ত্রিত্ব খুইয়ে জার্সি বদল করা বাবুল- দুজনে’ই ‘থম’ মেরেছিলেন দু’টি মাস। তবে, রবিবার দুজনেই ট্যুইটার হ্যান্ডেলে হাতঘুরিয়ে পুরনো অস্ত্রেই যেন শান দিলেন। অর্থাৎ, আসানসোলের বুকে জীতেন্দ্র তিওয়ারিকে খোঁচা মেরে তার নতুন খেলা শুরু করে দিলেন বাবুল সুপ্রিয়।

তার নতুন দল তৃণমূল কংগ্রেস বাবুল সুপ্রিয়কে গোয়া নির্বাচনের জন্য ‘দিদির দূত’র দায়িত্ব দিয়েছে। ইতিমধ্যেই পানাজি পৌঁছেও গেছেন বাবুল। গোয়া তার চেনা জায়গা। সেখানে পৌঁছেই বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি নিছক টাইম পাস করার জন্য ‘দিদির সৈনিক’র বর্ম পরেননি। ঝাঁঝালো ভাষাতেই কেন্দ্রকে আক্রমণ করার পাশাপাশি, তার পুরনো রাজনৈতিক দলকে হিট’ করে বাবুল এদিন ট্যুইট করেন-“ছোটবেলায় শুনেছিলাম যে, যদি নিজের মন ও হৃদয় বলে যে কেউ অন্যায় ভাবে তোমাকে ১০ টাকা জরিমানা দিয়েছে, তাহলে জরিমানাটা না দিয়ে আদালতে লড়াই করে, দরকার হলে ১০০ টাকা খরচ করে সেই জরিমানা প্রত্যাহার করাও।”

বাবুলের ট্যুইটের দু’ঘণ্টা পর বিজেপি’র রাজ্য কমিটি কোনো প্রতিক্রিয়া না দিলেও কার্যত, ‘গায়ে পড়ে’ এর ভেতর ঢুকে পড়লেন জীতেন্দ্র। সরাসরি বাবুলকে খোঁচা দিয়ে পাল্টা ট্যুইটে তার মন্তব্য- “মন্ত্রীত্ব চলে যাওয়াটা যদি জরিমানা হয়, তাহলে বিনা পরিশ্রমে রামদেব বাবার সুপারিশে ও মোদীজির জনপ্রিয়তায় সাংসদ হাওয়াটা লটারিতে প্রাইজ পাওয়ার মতো নয় কি?” উল্লেখ্য, এক মাস আগে যেদিন বাবুল তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন, তাকে প্রথম শুভেচ্ছা জানান জীতেন্দ্রই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here