অধ্যাপকের বিরুদ্ধে পড়ুয়ার “কলার” ধরার অভিযোগ, প্রতিবাদে কলেজ ঘেরাও

0
657

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ সারেঙ্গার পন্ডিত রঘুনাথ মূর্মু মহাবিদ্যালয়ে দ্বিতীয় বর্ষের ৪র্থ সেমিস্টারের পরীক্ষার্থীদের সাথে দুর্ব্যবহার, কলার ধরে মারধর, এমনকি মদ্যপ অবস্থায় ছাত্রীদের সাথে অভব্য আচরণের অভিযোগ তুলে সোস্যাল সাইটে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওর জেরে জেলার শিক্ষা মহলে আলোড়ন পড়ে গেছে। উঠছে সমালোচনার ঝড়ও। জানা গেছে, শুক্রবারে পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের প্যাটার্ন বদলে দেওয়ায় এই কলেজে সিট পড়া বাঁকুড়া খ্রিস্টান কলেজের পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা হলে নজরদারীর দায়িত্বে থাকা অধ্যাপকদের বিষয়টি নজরে অনলে এক পরীক্ষার্থী কে কলার ধরে মারতে উদ্যত হন এক অধ্যাপক। পাশাপাশি কয়েকটি রুমেও পরীক্ষার্থীরা একই সমস্যার কথা জানালে তাদের সাথেও দুর্ব্যবহার করার অভিযোগ ওঠে। এমনকি মদ্যপ অবস্থায় ছাত্রীদের সাথেও অভব্য আচরণ করা হয়েছে বলে ছাত্রীরা অভিযোগ তোলে। পরীক্ষার পর রঘুনাথ মুর্মু কলেজে বেশ কিছুক্ষণ খ্রিস্টান কলেজের পরীক্ষার্থীররা বিক্ষোভ দেখায়। কয়েকজন ঠেলাঠেলিতে পড়ে অসুস্থও হয়ে পড়ে। আজ, এই হেনস্তার শিকার হওয়া পরীক্ষার্থীরা বাঁকুড়া খ্রিস্টান কলেজ এর অধ্যক্ষকে পুরো ঘটনার কথা জানালে, অধ্যক্ষ ফটিক বরন মন্ডল এই আভিযোগ বাঁকুড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কে লিখিত আকারে জানান। তাছাড়া পরীক্ষার্থীদের দাবী মতো রঘুনাথ মুর্মু কলেজে আর সেন্টার ফেলা হবেনা বলেও জানান ফটিক বাবু। অন্যদিকে, সব পরীক্ষার্থীরা সোমবার তাদের স্বাক্ষর সম্বলিত অভিযোগ পত্র ও ভিডিও কলেজে কতৃপক্ষের হাতে তুলে দেবে বলে জানা গেছে। বাঁকুড়া খ্রিস্টান কলেজের ছাত্রদের দাবী গত বছরও পরীক্ষার সময় খারাপ ব্যবহার করেছিল ওই কলেজ। এবার আরো ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটল। তবে এই ঘটনার তদন্তের জন্য উর্ধতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হচ্ছে বলে কলেজ সুত্রে দাবী করা হয়েছে।