মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় চপ ভাজার পর এবার ফুল মিষ্টি নিয়ে জেলা তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ বাঁকুড়ার বিজেপি বিধায়কের

0
579

সংবাদদাতা, বাঁকুড়া:- এবার ফুল মিষ্টি নিয়ে জেলা তৃণমূল নেত্রী তথা বাঁকুড়া পৌরসভার ‘প্রশাসক’ অলকা সেন মজুমদারের সঙ্গে দেখা করে ফের বিতর্ক উস্কে দিলেন বাঁকুড়ার বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রি শেখর দানা। গত শনিবারই তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় রাস্তার ধারে চপ ভেজে বিতর্ক উস্কে দিয়েছিলেন। মাঝে একটা দিন বাদ দিয়ে সোমবার ফের পৌঁছে গেলেন জেলা তৃণমূল নেত্রীর কাছে। এই ঘটনাকে রাজনৈতিক মহলের একাংশ ইঙ্গিতবহ মনে করলেও বিধায়ক অবশ্য এই ঘটনাকে কেবল মাত্র সৌজন্য বিনময় বলেই দাবি করেছেন। এদিন তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন কিছু দিন বাদের বাঁকুড়ার পৌর নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়ে যাবে। তার আগে পৌরসভার প্রশাসককে কিছু কাজ করে দেওয়ার কথা জানাতে এসেছিলাম। দলের বিরুদ্ধে তার কোনও ক্ষোভ নেই বলেও এদিন তিনি দাবি করেন।

অন্যদিকে তৃণমূল নেত্রী তথা বাঁকুড়া পৌরসভার প্রশাসক অলকা সেন মজুমদার অবশ্য এই ঘটনাকে ইঙ্গিতবহ বলেই মনে করছেন। এদিন তিনি বলেন, “রাজ্যের বহু বিজেপি বিধায়ক ইতিমধ্যে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। এদিনে ঘটনায় একটা আশার ইঙ্গিত আমরা পাচ্ছি। আমাদের দরজা সব সময়ের জন্য খোলা রয়েছে। উনি এলে আসতে পারেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের যে কর্মযজ্ঞ তাতে সামিল হন, এটা আমরা সবসময় চাইব। ওনাকে আমরা স্বাগত জানাব আমাদের দলে আসার জন্য।”

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি দলের বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি পদে রদবদলের পর একের পর এক বিজেপি বিধায়ক প্রকাশ্যে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তা সে দলীয় হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ত্যাগ হোক কিম্বা ঐ ইস্যুতে সর্বভারতীয় সভাপতিকে চিঠি দিয়েই হোক। তাই অনেকেই মনে করছেন বাঁকুড়ার বিধায়কের একের পর এক কর্মকাণ্ড তার শাসক দলের ‘উন্নয়নের কর্মযজ্ঞে’ সামিল হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে, যা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষামাত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here