এসবিএসটিসির অস্থায়ী কর্মীদের লাগাতার আন্দোলনে চরমে যাত্রী ভোগান্তি

0
47

সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ- স্থায়ীকরণ সহ একগুচ্ছ দাবিতে দক্ষিনবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার বাঁকুড়া ডিপোর কর্মীদের বিক্ষোভ কর্মসূচী আজ তৃতীয় দিনে পড়ল। এদিন ডিপো ঘেরাও করে চলে বিক্ষোভ কর্মসূচী। যার জেরে ডিপোতেই আটকে পড়ে অধিকাংশ বাস। মহালয়ার সকালে চরম ভোগান্তির শিকার হন যাত্রীরা।

তবে শুধু বাঁকুড়া নয়, দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় এসবিএসটিসির অস্থায়ী কর্মীদের এই বিক্ষোভ কর্মসূচি চলছে। প্রসঙ্গত গত রবিবার দিঘার এসবিএসটিসি বাস ডিপো থেকে অস্থায়ী কর্মীরা প্রথম আন্দোলন শুরু করেন। যার আঁচ ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে গোটা দক্ষিণবঙ্গে। ধীরে-ধীরে মেদিনীপুর, বর্ধমান, দুর্গাপুর, বাঁকুড়া, বহরমপুর, হাওড়া সহ একাধিক জেলায় এসবিএসটিসির অস্থায়ী কর্মীরা পরিষেবা বন্ধ রেখে বিক্ষোভ-অবস্থানে বসেন। তৃণমূল শ্রমিক সংগঠন অইনটিটিইউসির ছত্রছায়ায় চলছে এই বিক্ষোভ আন্দোলন। মূলত ৭ দফা দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন দক্ষিনবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার অস্থায়ী বাসকর্মীরা। দাবিগুলির মধ্যে রয়েছে, ২০১২ থেকে ২০২২ পর্যন্ত সমস্ত অস্থায়ী কর্মচারীকে অবিলম্বে স্থায়ী করতে হবে। স্থায়ী কর্মীদের মতো সমকাজে সমান বেতন দিতে হবে। এছাড়া প্রত্যেক অস্থায়ী কর্মচারীদের মাসে ২৬ দিনের পূর্ণদিবস কাজ দিতে হবে, স্থায়ী কর্মীদের মতো ছুটি মঞ্জুর, ছাঁটাই হওয়া কর্মীদের পুনর্বহাল, বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি, এসবিএসটিসির নির্ধারিত সমস্ত পরিষেবা চালু, বিভিন্ন রুটে বন্ধ হয়ে যাওয়া একাধিক বাস পরিষেবা ফের স্বাভাবিক করা সহ একগুচ্ছ দাবি। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিক্ষোভরত কর্মীরা। এদিকে অস্থায়ী কর্মীদের আন্দোলনের জেরে কর্তৃপক্ষ স্থায়ী কর্মীদের দিয়ে হাতে গোনা কয়েকটি রুটে বাস চালিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হচ্ছে। যাত্রী পরিষেবা প্রায় লাটে ওঠার জোগাড়। ফলে পুজোর মরশুমে এই কর্মবিরতিতে রীতিমতো বিপাকে পড়েছেন গ্রামগঞ্জ থেকে শহরতলির যাত্রীরা। পুজোর আগে আদৌ সমস্যা মিটবে কিনা, তা নিয়েও রয়েছে সংশয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here