ভোট পেরোলেও বাঁকুড়া জেলার জলসংকট সেই তিমিরেই

0
1005

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ ভোট পেরিয়েছে যেমনকার তেমনভাবেই। কিন্তু প্রথাগত নিয়ম মেনেই বাঁকুড়ার জল সংকটের হাল ফেরেনি আজও। ভোটের প্রাক্কালে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা বাঁকুড়ার অন্যতম সমস্যা জল সংকটকে সামনে এনেই জনগণের মন জয়ে ভোট প্রচারে নেমেছিলেন। কিন্তু তারপর ভোট পেরিয়েছে, ভোটের ফল প্রকাশ হয়েছে কিন্তু বাঁকুড়ার ছাতনা জেলার জোড়থোল গ্রামে জলের সমস্যার হাল তো হয়ই নি বরং দিনের পর দিন তা প্রকট হয়েছে। বর্তমানে গত এক মাস ধরে জোড়থোল গ্রামে সরকারী নল থেকে জল পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে চরম দুর্ভোগে এলাকার বাসিন্দারা। দীর্ঘদিন যাবৎ জল না পেয়ে এবং প্রশাসনিক কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় সোমবার সকাল থেকে সমস্ত মহিলারা এক জোট হয়ে বিক্ষোভে সামিল হন। স্থানীয় রাস্তা অবরোধ করে জলের দাবিতে তারা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। একেই আষাঢ় মাস পড়ে গেলেও গ্রীষ্মের দাবদাহ এখনও বিদ্যমান। এখনও ৪০ থেকে ৪৫ ডিগ্রি তাপমাত্রার মধ্যে ওঠানামা করছে বাঁকুড়া জেলা। এই তীব্র দাবদাহের মধ্যে জল সঙ্কট দেখায় তীব্র ক্ষোভের দানা বেধেছে বাঁকুড়ার ছাতনা থানার জোড়থোল, মণিহারা, ভেলানী, আশুরাবাদ সহ একাধিক গ্রামে। অভিযোগ, প্রত্যেকটি গ্রামেই জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তরের তরফে বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা থাকলেও দীর্ঘ একমাস যাবত তারা জল পাচ্ছেন না। বিভিন্ন দপ্তরে বারবার তারা আবেদন নিবেদন করা সত্ত্বেও পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হয়নি বলে অভিযোগ। তাই অবশেষে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ শামিল হলেন গ্রামের মহিলারা। ছাতনা পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ স্বপন মন্ডল জানান পাইপলাইনে আংশিক ত্রুটির কারণে বেশ কিছুদিন জল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে ওই এলাকায়, তবে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই সেই জল সরবরাহ পুনরায় চালু হয়ে যাবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।