উপ-নির্বাচনের ফল বেরোতেই সোনামুখীতে আক্রান্ত বিজেপি কর্মীরা

0
438

সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ-

গতকাল রাজ্যের ৩ বিধানসভা কেন্দ্রে উপ-নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হয়। আর ফল প্রকাশিত হতেই ফের আগ্রাসী হয়ে উঠল তৃণমূল কর্মীরা, আক্রান্ত বিজেপি কর্মীরা। ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়া জেলার সোনামুখী থানার মানিকবাজার পঞ্চায়েতের কাষ্ঠসাঙ্ঘা গ্রামে। চারজন বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে। বিজেপি সুত্রে খবর, তৃণমূলের মারে তাদের মোট চারজন বিজেপি কর্মী আহত হয়েছেন। আহতদের সোনামুখী হাসপাতালে ভর্তি করা হলে দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয় এবং বাউল খাওয়াস নামে এক বিজেপি কর্মীকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। এবং একজন এই মুহূর্তে সোনামুখী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

বিজেপি নেতা শান্ত পাল বলেন, গতকাল তিন বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচনের ফল বেরোনোর পর তৃণমূল কর্মীরা অতি উৎসাহিত হয়ে বিজেপি কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বোমা ফাটায়, বাজনা বাজায় এবং রাতে বিজেপির যত পতাকা ছিল সব ছিঁড়ে ফেলে দেয়। সকালবেলায় বিজেপি কর্মীরা উঠে দেখে তাদের পতাকা গুলো ছিড়ে মাটিতে পড়ে রয়েছে। তখন বিজেপি কর্মীরা তৃণমূল কর্মীদের একথা বললে তৃণমূল কর্মীরা জড়ো হয়ে আচমকা বিজেপি কর্মীদের মারধর করে। টাঙ্গী রড দিয়ে মারধর করা হয় বলেও তিনি জানান। তবে প্রশাসনের ওপর আস্থা রেখে তিনি বলেন প্রশাসন দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করবে।

মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা বলেন, গতকাল তিনটি বিধানসভা উপনির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস জয়যুক্ত হওয়ার পর আমাদের দলীয় কর্মীরা এবং নেতৃত্বরা বিভিন্ন অঞ্চলে বাজারে গিয়ে সাধারণ মানুষকে মিষ্টি বিতরণ করেন। আজকে সকালের দিকে মানিকবাজার অঞ্চলের সভাপতি প্রবীর গড়াই এবং তার ছেলে যখন মাঠে কাজ করার জন্য বেরিয়ে ছিল, তখন অতর্কিতভাবে বিজেপির বেশ কিছু দুষ্কৃতী এই অঞ্চল সভাপতির উপর আক্রমণ করে। এবং তার ছেলেকে মারধর করে। এই মুহূর্তে সে হসপিটালে ভর্তি রয়েছে। সুতরাং বিজেপি ভাবছে আমরা নতুন করে সন্ত্রাস তৈরি করে এলাকায় অশান্তির বাতাবরণ তৈরি করব তাহলে তারা মূর্খের স্বর্গে বাস করছে। তবে এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেস কোনোভাবেই জড়িত নয় বলেই তিনি দাবি করেছেন।

সোনামুখী পৌরসভার চেয়ারম্যান সুরজিৎ মুখার্জি বলেন, একটা সময় মানিকবাজার সিপিএমের হার্মাদ দের আঁতুড়ঘর ছিল। লোকসভা ভোটের পর সেই হার্মাদরা উল্লসিত হয়ে গেরুয়া জল্লাদ হয়েছে। ওই গেরুয়া জল্লাদরা গতকাল আমাদের কর্মীদের মারধর করেছে। মানুষ গতকাল গালে থাপ্পর দিয়েছে এবারে জল্লাদদের ব্যবস্থা আমরা করে দেবো। যেমন ২০১১ পর সব ইঁদুরের গর্তে ঢুকে গিয়েছিল আবার সেই জল্লাদদের ইন্দুরের গর্তে ঢুকতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here