জামালপুরে ত‍ৃণমূল মহিলা কংগ্রেসের রক্তদান শিবির

0
325

জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জী,জামালপুরঃ- করোনা জনিত নিষেধাজ্ঞা ও খানিকটা আতঙ্কের কারণে নিয়মিত রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছেনা। এরফলে বিভিন্ন ব্লাড ব্যাংকে মুমূর্ষু রুগীদের জন্য প্রয়োজনীয় রক্তের অভাব দেখা যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে রক্তের চাহিদা মেটাতে এগিয়ে এল জামালপুর ব্লক মহিলা তৃণমূল কংগ্রেস।
গত ২৮ শে জুন জামালপুর ব্লক মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে এবং জামালপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস ও তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সক্রিয় সহযোগিতায় জামালপুরে রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হলো। কেবলমাত্র মহিলারাই এই শিবিরে রক্তদান করে। বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংক শাখা এই শিবির থেকে ৫০ ইউনিট রক্ত সংগ্রহ করে। আরও অনেক উৎসাহদাতা রক্তদানের জন্য উপস্থিত থাকলেও নিষেধাজ্ঞা জনিত কারণে সেটা সম্ভব হয়নি। উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে শীঘ্রই আরও একটি রক্তদান শিবিরের আয়োজন করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সংগৃহীত রক্ত ব্লাড ব্যাংক কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়। কেবলমাত্র মহিলাদের জন্য আয়োজিত এই শিবিরের সাফল্য নিয়ে উদ্যোক্তাদের মধ্যে সংশয় থাকলেও মহিলাদের উৎসাহ দেখে তারা বিষ্মিত হন।
রক্তদাতাদের উৎসাহ দেওয়ার জন্য শিবিরে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য মুখপাত্র তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতি মাননীয় দেবু টুডু , জামালপুর বিধানসভার বিধায়ক অলোক কুমার মাজি , জামালপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মেহেমুদ খান , পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি রাসবিহারী হালদার , মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভানেত্রী শিখা সেনগুপ্ত , জামালপুর ব্লক তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি ভূতনাথ মালিক , জামালপুর ব্লকের মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষা মিঠু মাঝি, সংখ্যালঘু সেলের জেলা সভাপতি মহঃ আশরাফউদ্দিন , সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি তাবারক আলি মন্ডল মহাশয়, জয়হিন্দ বাহিনীর ব্লক সভাপতি তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সহসভাপতি মাননীয় সাহাবুদ্দিন মন্ডল সহ জামালপুর ব্লকের প্রতিটি পঞ্চায়েতের প্রধান উপপ্রধান, অঞ্চল নেতৃত্ব ও অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।
বর্তমান পরিস্থিতিতে এই রক্তদান শিবিরের আয়োজন করার জন্য দেবু টুডু উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানান। একইসঙ্গে রক্তদাতা মহিলাদের প্রশংসা করে তিনি বলেন – সংসারের যাবতীয় দায়িত্ব সামলে যেভাবে মহিলারা এগিয়ে এসেছে তাতে আমরা গর্বিত। ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ স্লোগান আজ সত্যিই সার্থক। একই সুর শোনা গেল বিধায়কের কণ্ঠে। তিনি বলেন – আমার বিধানসভা এলাকার মহিলারা যেভাবে রক্ত দিতে এগিয়ে এসেছে তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। এরজন্য তিনি সমস্ত কৃতিত্ব ব্লক সভাপতি মেহমুদ খান সহ ব্লকের অন্যান্য নেতৃত্বকে দেন।

        

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here