শাসকদলের দূর্নীতির প্রতিবাদে বড়জোড়া গদারডিহি গ্রামপঞ্চায়েত অফিস ঘেরাও বিজেপির

0
728

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ রাজ্যে লোকসভা নির্বাচন অতীত। শাসকদল তথা ঘাসফুলের গড়ে হানা দিয়ে লোকসভা ভোটে তৃণমূল কংগ্রেসের ৪২ আসনের মধ্যে ১৮টি আসনে থাবা বসিয়েছে গেরুয়া বাহিনী। মোদী ঝড়ে ভিত নড়েছে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ তৃণমূল কংগ্রেসের দূর্গে। আর রাজ্যে গেরুয়া শিবিরের বিরোধী দল হিসেবে উঠে আসার পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় সক্রিয় হয়ে উঠেছে বিজেপি। যার আঁচ চোখে পড়ছে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায়। উদাহরণ হিসেবে, বাঁকুড়া জেলায় সম্প্রতি বিজেপির অভিযান তারই প্রমাণ। সেরকমই শাসকদলের বিরুদ্ধে স্বজনপোষণ এবং দূর্নীতির অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ সমাবেশে নামল বিজেপি নেতা-নেতৃত্ব এবং কর্মী-সমর্থকেরা। ঘটনা বাঁকুড়ার বড়জোড়ার গদারডিহি গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস এলাকার। বিজেপির অভিযোগ, ক্ষমতায় আসার পর থেকে তৃণমূল পরিচালিত সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন কর্মী-সমর্থকরা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, একশো দিনের কাজ সহ নানান কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারের সুযোগসুবিধা নিয়ে পক্ষপাতিত্ব করছে। শুধু তাই নয়, সরকারী ঘরবাড়ি, আর্থিক যোজনা, স্বাস্থ্যবীমার কার্ড সহ বিভিন্ন সরকারী সাহায্যের ক্ষেত্রেও গরীব মানুষদের কাছ থেকে মোটা টাকা কাট মানি বাবদ আদায় করা হচ্ছে বলে বিজেপির অভিযোগ। উদাহরণ হিসেবে বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, কোনো বিপিএল তালিকাভুক্ত পরিবারকে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পে ঘর তৈরীর জন্য কেন্দ্রের তরফে যে টাকা পাঠানো হচ্ছে তা পাইয়ে দেওয়ার জন্য ওই পরিবারের কাছ থেকে কখনো ৫ হাজার টাকা আবার কখনও ১০ হাজার টাকা বেআইনিভাবে জোর করে নেওয়া হচ্ছে। শুধু তাই নয়, কোনও শংসাপত্র বা সার্টিফিকেট তুলতে গেলেও শাসকদলের তরফে টাকা দাবি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন সাধারণ মানুষ। এরই সম্মিলিত প্রতিবাদ স্বরূপ গত কয়েক দিন ধরেই শাসক দলের বিরুদ্ধে বাঁকুড়ার বড়জোড়ার গদারডিহি গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসের সামনে বিক্ষোভ চালায় বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।