বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী পুরুলিয়ার বাঘমুন্ডির তুন্তুরী গ্রামের মেয়ে

0
2750

জয়প্রকাশ কুইরি, পুরুলিয়াঃ- যে রিয়া চক্রবর্তী কে নিয়ে তোলপাড় সারা দেশ, সেই রিয়া চক্রবর্তীর আদি বাড়ি পুরুলিয়া জেলার বাঘমুন্ডি থানার তুন্তুরী গ্রামে। আভিজাত্য পরিবারের বংশধর ছিলেন রিয়া চক্রবর্তী। তার দাদু শিরিষ চক্রবর্তীর নিজ বাস ভবনে একটি নাট্য মন্দিরও স্থাপন করেছিলেন এবং সেই নাট্য মন্দির আজ জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। পাশেই রয়েছে ৩৩৬ বছর ধরে চলে আসা দূর্গা পুজোর দূর্গা প্রতিমা। রিয়া চক্রবর্তীর প্রতিবেশী দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় রিয়ার বয়স যখন ৩ বছর সেই সময় এই তুন্তুরী গ্রামের তাদের দূর্গা পুজোয় উপস্থিত হয়েছিলেন। তার পর তিনি আর আসেন নি। তার দাদু শিরিষ চক্রবর্তী তুন্তুরী হাই স্কুল ও তুন্তুরী উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের জন্য জমি দান করেছিলেন। আর এই শিরিষ চক্রবর্তীর বাবা রামময় চক্রবর্তী কলকাতা হাই কোর্টের বেরিষ্টার ছিলেন। শিরিষ চক্রবর্তী ছিলেন রিয়া চক্রবর্তীর দাদু পেশায় ধানবাদের কোলিয়ারিতে ম্যানেজার পোস্টে চাকুরী করতেন বলে জানা যায়। গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় শিরিষ চক্রবর্তীর নিয়মিত যোগাযোগ থাকতো তুন্তুরী গ্রামে। শিরিষ চক্রবর্তীর ছেলে ডাক্তার ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী মিলিটারি ডাক্তার ছিলেন আর এর থেকেই দূরত্ব তৈরী হয় আদি বাড়িতে আর এর পরেই পাড়ি মুম্বাই যাত্রা।

বর্তমানে তাদের আদি বাড়ি ভগ্ন প্রায় অবস্থায় রয়েছে। রিয়ার ৩ বছর বয়সে দূর্গা পুজোয় আসার পর আর তাদের কেউই এই আদি বাড়ী আসেন নি যা বর্তমানে তালা লাগানো অবস্থায় রয়েছে। তুন্তুরী এলাকার ১৮ টি মৌজার খাজনা আদায় করার দায়িত্ব তাদের বংশধর দেরই ছিল এককথায় সেই সময় তারা দেওয়ানি উপাধি লাভ করেছিলেন। রিয়া চক্রবর্তীর বংশ ধরেরা কর্ম সূত্রে দেশের বিভিন্ন জায়গায় থাকলেও দুর্গ পুজোর সময় সবাই গ্রামের দুর্গ পুজোতে উপস্থিত হতেন বহু পূর্বে। রিয়ার দাদুর স্থাপন করা নাট্য মন্দির নাট্য যাত্রা পালা তখন থেকেই চলে আসছে। এককথায় নাট্যের প্রতি টান তখন থেকেই বিরাজ মান এই পরিবারের। তবে পরিবারের অনেকেই সংবাদ মাধ্যম কে এই বিষয়ে তত্থ দিতে নারাজ।

এই বিষয়ে ফরওয়ার্ড ব্লকের পুরুলিয়ার জেলার প্রাক্তন সাংসাদ তথা ওই এলাকারই বাসিন্দা বীরসিং মাহাতো বলেন রিয়া চক্রবর্তী একজন আভিজাত্য পরিবারের মেয়ে। তাদের বংশধরদের আমাদের এই বাঘমুন্ডি এলাকায় প্রচুর সুনাম রয়েছে সে এরকম ঘটনার সাথে যুক্ত হতে পারে না এটা তাকে চক্রান্ত করে ফাঁসানো হয়েছে। এই খবর ততদিন জীবিত থাকবে যতদিন না পর্যন্ত বিহার বিধানসভা নির্বাচন শেষ না হয়ে যায় বলে তিনি মন্তব্য করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here