জলঙ্গি কাণ্ডে ঝটিকা সফরে মুর্শিদাবাদে বিএসফ এর স্পেশাল ডিজি

0
480

সংবাদদাতা,মুর্শিদাবাদ:-

দেশব্যাপী হৈ চৈ ফেলে দেওয়া জলঙ্গীর কাকমারী চরে বাংলাদেশি বিজিবি এর ছোড়া গুলিতে মৃত্যু হওয়া ভারতীয় বিএসফ জওয়ান কান্ড ও ভারতীয় মৎসজীবী প্রণব মন্ডল কে আটকে রাখার ঘটনায় শনিবার কাকমারী বিওপি তে আসেন দিল্লি থেকে আসেন স্পেশাল ডিজি ইস্টার্ন কমেনডেন্ট সঞ্জীব সিং। তিনি দীর্ঘক্ষণ এলাকা পরিদর্শণ করেন।পরে জলঙ্গি থেকে বহরমপুরে মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আহত জওয়ান রাজবীর সিং এর সাথে দেখা করে তিনি বলেন,” আমরা দ্রুত প্রনব কে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি। বিজিবি গুলি চালিয়েছে আমাদের একজন মারা গেছে এটা খুব দুঃখ জনক ঘটনা। দুই দেশের উচ্চ পর্যয়ে আলোচনা চলছে। সেই সঙ্গে আমাদের আহত জওয়ান কে উন্নত চিকিৎসার জন্য কলকাতা স্থানানন্ত্রিত করা হবে”। পাশাপাশি প্রণব মন্ডলের স্ত্রী রেখা মন্ডল জানান,”তার স্বামী এখনো বাংলাদেশে আটক।

তবে কবে ফিরবে তার স্বামী সেই আশায় পথ চেয়ে বসে আছি আমি আমার তিন কন্যা এক ছেলে ও শাশুড়ি”। জানা যায়, বুধবারের ঘটনায় যে তিনজন মৎসজীবি ছিলেন তাদের মধ্যে বিকাশ মন্ডল ও অচিন্ত মন্ডল দুই দিন বিএসফ ক্যাম্পে থেকে তারা শনিবার বাড়ি ফিরেছেন। কিন্তু এখনো ফেরেননি প্রণব মন্ডল। ফেরৎ আসা মৎসজীবীরা জানিয়েছেন, প্রণব মন্ডলের বোটে করেই তারা মাছ ধরতো। তাই প্রনব না ফেরায় তারাও আতঙ্কিত। তবে এর পরে তারা পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যাবে কি না তাই ভাবছে। কিন্তু তাদের তো মাছ ধরাই পেশা। তাই কবে থেকে তাদের মাছ ধরতে দেওয়া হবে তা তারা জানে না।

সেদিনের ঘটনার পরিপেক্ষিতে তারা জানিয়েছেন যে। বাংলাদেশে এই সময় ইলিশ মাছ ছাড়া হয়। সে দেশে মাছ ধরে এই সময়ে নিষেধ। কিন্তু জলঙ্গীর শিরোচরের বাসিন্দা বিকাশ, অচিন্ত ও প্রণবের মতো মৎসজীবিরা মাছ এই সময়েই মাছ ধরে বেশ কিছু পয়সা কামাই। সেদিন তারা পদ্মায় মাছ ধরতে ধরতে মাঝ পদ্মায় চলে গেলে বিজিবি তদের ধরে আটকে দেয়। ২ জন কে ছেড়ে দিলেও প্রণব মন্ডলকে না ছাড়ায় তারা ফিরে এসে স্থানীয় ১১৭,নং ব্যাটালিয়নের বিএসঅফ কে সঙ্গে নিয়ে পদ্মায় গেলে বিজিবি তাদের দিকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। তাতে ১ জন ওই বিএসফ জওয়ান মারা যান ও এক জন আহত হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here