হুমকির জেরে আত্মঘাতী সভাধিপতির “প্রেমিক”ঃ চাঞ্চল্য বর্ধমানে

0
1529

সংবাদদাতা, বর্ধমানঃ- জেলা পরিষদের সভাধিপতির “প্রেমিক” র আত্মঘাতী হওয়ার ঘটনাকে ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য দক্ষিণ দামোদরের গ্রামগুলিতে। মঙ্গলবার সকাল থেকে। গোটা ঘটনায় বেলা পর্যন্ত মুখে কুলুপ এঁটেছেন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্ব এবং সভাধিপতি নিজেও।

পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ থানা এলাকার শ্যামা ডাঙ্গা গ্রামে বাড়ি জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধারার। পাশের গ্রাম দুবরাজহাটের বাপ্পা ঘোষ (২৫) র সাথে তার সম্পর্ক অন্তত ছয় বছরের । বাপ্পা খন্ডকোষের লোধনা পঞ্চায়েতের ১০০ দিনের কাজের সুপারভাইজার। কিন্তু ২০১৭ তে সভাধিপতি হওয়ার পর থেকেই বাপ্পার সাথে সম্পর্ক থেকে সরে আসতে চাইছিলেন শম্পা। কিন্তু বাপ্পা ছিল নাছোড় । এই নিয়েই সম্পর্কের টানাপোড়েনের মধ্যেই সোমবার রাত্তিরে দুবরাজহাটে বাপ্পার বাড়ি চড়াও হয় উন্মত্ত কয়েকজন যুবক। তারা হুমকি দেয় ‘বাপ্পাকে শম্পার সাথে সম্পর্ক থেকে সরে আসতে হবে । নচেৎ তার ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে, তাকে এলাকাছাড়া করা হবে’ বলে বাপ্পার পরিবারের অভিযোগ । গোটা ঘটনায় শেষ অবধি মানসিক চাপ সইতে না পেরে মঙ্গলবার সাতসকালেই বিষ খাই বাপ্পা । গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে সকাল আটটার পরে সে মারা যায়। বাপ্পা মারা যেতেই দারুন চাঞ্চল্য ছড়ায় খন্ডঘোস থানা এলাকার গ্রামগুলিতে । দলে-দলে যুবক ও বাপ্পার পরিবারের লোকজনের খন্ডঘোস থানায় জড়ো হয়। তাদের দাবি আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে জেলা পরিষদের সভাধিপতি কে গ্রেপ্তার করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here