ফিল্মি কায়দায় স্বর্ণ ব্যবসায়ী কে শ্যুট আউট দুষ্কৃতীদের

0
434

সংবাদদাতা, মুর্শিদাবাদঃ- ফিল্মি কায়দায় ধাওয়া করে প্রতিষ্ঠিত স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে তাক করে শুট আউটের চেষ্টা দুষ্কৃতীদের। গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে সাথে থাকা ভাইপোর পেটের এফোঁড়-ওফোঁড় হয়ে গুরুতর জখম। দীর্ঘক্ষন দোকানের অর্ডারের কাজ সেরে দৌলতাবাদ থানার এলাকার এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী উৎপল সেন তার ভাইপো কিশোর সৌরভ সেন কে সাথে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন বহরমপুরের খাগড়া তে।নিশ্চুপ রাত্রে দুষ্কৃতীরা স্কুটিতে করে বাড়ি ফেরার পথে ধাওয়া করতে থাকে ওই স্বর্ণ ব্যবসায়ী কে। সন্ধ্যায় অন্ধকারে প্রথমে কিছু বুঝতে না পারলেও কয়েক কিলোমিটার যাবার পরেই বালির ঘাট এলাকায় উৎপল বাবুর স্কুটির কাছাকাছি এসে তাকে লক্ষ্য করে পিছন থেকে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে বাইকে থাকা অপর কয়েকজন দুষ্কৃতী। আচমকা বিকট আওয়াজে উৎপল বাবুর স্কুটির পিছনে থাকা তার ভাইপো সৌরভ রাস্তার ওপরই রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়ে। এমনসময় বেগতিক বুঝে অন্ধকারে মিলিয়ে যায় ওই দুষ্কৃতীরা। তড়িঘড়ি স্কুটি থামিয়ে উৎপল বাবু তার ভাইপোকে কোনরকমে উদ্ধার করে নিয়ে আনেন মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। পেটের এফোঁড়-ওফোঁড় হয়ে যায় ওই গুলি। সারা শরীরে, চোখে, নাকে চোট পান উৎপল বাবুও। জানা যায়, বহরমপুর খাগড়া এলাকার বাসিন্দা উৎপল সেন কয়েক বছর ধরেই সেখান থেকে প্রায় সাত-আট কিলোমিটার দূরের দৌলতাবাদ থানা এলাকায় একটি প্রতিষ্ঠিত সোনার দোকান খোলেন। বিয়ের মরশুম চলতে থাকায় হাতে বেশ কিছু বড় অর্ডার পান তিনি। সেই অর্ডারের কাজ সারতেই কয়েকদিন ধরে রাত পর্যন্ত দোকানে কাজ চালিয়ে যেতে হচ্ছেছিল উৎপল বাবু কে। তার সাথে তাকে কাজে সহযোগিতা করেন তার ভাইপো সৌরভ। রবিবার গভীর রাত্রে কাজ সেরে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি তারপরেই পথে ঘটে এই রোমহর্ষক ঘটনা। সন্ধ্যায় হসপিটাল থেকে ফেরার পথে বহরমপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন উৎপল বাবু। শেষ পাওয়া খবরে কেউ গ্রেফতার হয়নি বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে থানার এক আধিকারিক বলেন,”সম্ভবত দুষ্কৃতীরা কয়েকদিন ধরে উত্তমকে নজরে রেখেছিলেন তারপরেই এই হামলা চালিয়েছে আমরা আশেপাশের এলাকায় দোষীদের খুঁজে জোর চিরুনি তল্লাশি চালাচ্ছি”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here