ওয়াটার স্পোর্টস চালু হল, মুকুটমনিপুরে এবার আসছে কেবল কার

0
484

বিমান পন্ডিত, মুকুটমনিপুরঃ- একের পর এক পর্যটন পরিকাঠামো গড়ে প্রকৃতি সুন্দরী মুকুটমনিপুর কে আরো আকর্ষনীয় করে তুলেছে রাজ্য সরকার। ঝুলে থাকা ‘ওয়াটার স্পোর্টস’ প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের পাশাপাশি এবার সরকার জোর দিচ্ছে রোপওয়ে বসানোর কাজে। সেই মোতাবেক প্রয়োজনীয় মাটি পরীক্ষার কাজও শেষ হয়েছে সম্প্রতি, বলে বাকুড়া জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।
শুধু মুকুটমনিপুরে ই নয়, সরকারি প্রস্তাব মোতাবেক – রোপওয়ে চালু করা হবে পুরুলিয়া অযোধ্যা পাহাড় কে ঘিরে যে পর্যটন কেন্দ্র সেখানেও। পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেঁর বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পেও বসবে রোপওয়ে। তবে, রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেবের কথায়, “বক্সায় প্রাথমিক মাটি পরীক্ষার পর বিশেষজ্ঞদের মনে হয়েছে, সেখানে আরো সূক্ষ ভাবে নতুন করে মাটির নিচের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করা দরকার। তাই, বক্সার ব্যাপারে আমরা খানিকটা চিন্তায় আছি”। কিন্তু, পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড় বা বাঁকুড়ার মুকুটমনিপুর জলাধার ঘিরে যে রোপওয়ের প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে, তা নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী রাজ্য।
মুকুটমনিপুরের পরেশনাথ পাহাড় থেকে পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড়ের দূরত্ব ১০৪ কিলোমিটার। দুটি জায়গার পর্যটন চরিত্র আলাদা। দুর্গাপুর, আসানসোল তো বটেই, গত কয়েক বছরে কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিন ২৪ পরগনা থেকে কয়েক’শ পর্যটক ওই দুই জায়গায় পর্যটনে আসেন, বিশেষতঃ শীতের মুরশুমে।
মুকুটমনিপুর কে আরো সুন্দর করে সাজাতে, পর্যটন পরিকাঠামো গড়ে তুলতে গত মাসেই জলাধারে ওয়াটার স্কুটার, কায়াক ও স্পীডবোট পরিষেবা চালু করা হয়েছে। খাতড়ার মহকুমা শাসক রাজু মিশ্রা বলেন, “একটি বেসরকারি সংস্থা ওয়াটার স্পোর্টস চালু করেছে”। মুকুটমনিপুরে রোপওয়ে প্রসঙ্গেঁ তিনি বলেন, “রাজ্য পর্যটন দপ্তর ই রোপওয়ের মতো একটি বড়সড় প্রকল্প রুপায়নের কাজে হাত দিয়েছে। আমরা পরেশনাথ পাহাড়ের কাছে সে জন্য আলাদা করে জমিও বেছে দিয়েছি”।
রাজ্য পর্যটন দপ্তরের একটি সূত্র জানাচ্ছে, এখন সবে মাটি পরীক্ষার কাজ শেষ হল। জলাধারের মাথার ওপর কেবল কার চালু হতে অন্ততঃ এক বছর সময় লাগবেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here