পারিবারিক বিবাদের জেরে জেঠা, জেঠিমার হাতে খুন আড়াই বছরের ভাইপো

0
1268

সংবাদদাতা, বীরভূমঃ- ভাইয়ে ভাইয়ে বিবাদ। বোলপুরের কাশীপুরে তার জেরেই খুন হতে হলো আড়াই বছরের ভাইপোকে। জেঠা জেঠিমা আড়াই বছরের আতব আলি খান কে ঘরে ডেকে নিয়ে মাথায় আঘাত করে মৃত্যু নিশ্চিত করতে নাক মুখে কাপড় বেঁধে ডুকিয়ে দেয় ঘরের আলমারিতে। দুপুর থেকে আটক। মুরসেদ আলি খান ছেলে নিখোজ হওয়ায় আশপাশের পুকুর ঘাট থেকে শুরু করে খোঁজাখোঁজি করে না পেয়ে বাড়িতে ফিরে যখন শোকে ভেঙে পরে সেই সময় পাশের ঘরে থাকা দাদা পেয়ার আলি ও তার স্ত্রী আচরনে সন্দেহ হয়। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ আাসার আগেই খোজা খোজি করে মুরসেদ আলমারি থেকে উদ্ধার করে ছেলের মৃত দেহ। এই ঘটনায় দুজনকেই পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।
শুক্রবার দুপুরের পর থেকে বীরভুমের বোলপুর থানার অন্তর্গত কাশিপুর গ্রামে মোরশেদ আলী খানের আড়াই বছরের শিশু হঠাৎ নিখোঁজ হয়েছে। দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শুরু হয় খোঁজাখুঁজি। শিশুকে খুঁজে না পেয়ে অভিযোগ করা হয় বোলপুর থানায়। সন্ধ্যা নাগাদ কাশিপুর গ্রামে পৌঁছায় বোলপুর থানার পুলিশ। ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বোলপুরের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অভিষেক রায়। পুলিশের তল্লাশি অভিযানে, ওই শিশুর দেহ উদ্ধার হয় তার জেঠিমার বাড়ির আলমারি থেকে। পুলিশ জেরা শুরু করে শিশুটির জেঠিমা তাজমিরা বিবি এবং জেঠু পেয়ার আলি খান কে। পুলিশের জেরায় উঠে আসে শিশু হত্যার ঘটনা রহস্য।
পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে খবর, শিশুটির জেঠিমা তাজমিরা বিবি শিশুটির মাথায় জোড় আঘাত করে। তারপর শ্বাসরোধ করে খুন করে আলমারির মধ্যে লুকিয়ে রাখে। এই খবর গ্রামে চাওর হতেই উত্তেজনায় ফেটে পড়ে গ্রামবাসীরা। পুলিশ শিশুটির জেঠু জেঠিমা কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে তাজমিরা বিবি কে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর গ্রেপ্তার করে বোলপুর থানার পুলিশ। ধৃত তাজমিরা বিবি কে আজ বোলপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়। বোলপুর থানার পুলিশের পক্ষ থেকে ধৃতকে দশদিনের পুলিশি হেফাজতের নেওয়ার জন্য আবেদন করা হয়। বোলপুর মহকুমা আদালত বিচার-বিবেচনা করে সাত দিন পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেয়। অন্যদিকে শিশুটিকে শনিবার বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করার পর গ্রামে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here