সিপিআইএমের “লালমাটির রান্নাঘরে” পনেরো টাকায় মাংস ভাত কটাক্ষ তৃণমূল কংগ্রেসের

0
529

সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ- বর্তমান কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয় গোটা বিশ্বের মানুষ আজ দিশেহারা অনেকেই কাজ হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। সবথেকে বেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে গ্রাম গঞ্জের এবং শহরের দিন আনা দিন খাওয়া সাধারন মানুষগুলোকে। এবার সেই সমস্ত সাধারন মানুষ গুলোর কথা চিন্তা করে সোনামুখী বিধানসভার সিপিআইএম বিধায়ক অজিত রায়ের নেতৃত্বে এবং অন্যান্য সকল বাম সংগঠনগুলোর সহযোগিতায় সোনামুখীর সিপিআইএমের দলীয় কার্যালয়ে গত ১৫ ই আগস্ট থেকে চালু হয়েছে “লালমাটির রান্নাঘর”। যেখানে ১৫ টাকা দিয়ে টোকেন সংগ্রহ করলেই মিলছে মাংস ভাত, মাছ ভাত, ডিম ভাত। সোনামুখী পৌর এলাকার অসহায়-দুস্থ সাধারন মানুষগুলো এই সুযোগ পেয়ে অনেকটা উপকৃত হয়েছেন বলে দাবি করছে সিপিআইএম নেতৃত্ব। রাজ্য সরকার বিনামূল্যে রেশন প্রদান শুরু করেছেন ১০০ দিনের প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে সাধারণ মানুষ এই মুহূর্তে অনেকটাই আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হতে পেরেছেন আর এতদিন পর কেন এই রান্নাঘর তাই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।

সোনামুখী পৌরসভার বর্তমান প্রশাসক সুরজিৎ মুখার্জি সিপিআইএমের এই লালমাটির রান্নাঘরকে হোটেল ব্যবসা বলে কটাক্ষ করেন। তিনি আরো বলেন যখন মানুষ সত্যিকারের সমস্যায় ছিলো তখন সিপিআইএমের টিকি খুঁজে পাওয়া যায়নি আর এখন তারা মানুষকে খাওয়ানোর নামে ব্যবসা করছেন। তবে তৃণমূলকে একেবারেই পাত্তা দিতে নারাজ সোনামুখী বিধানসভার সিপিএম বিধায়ক অজিত রায়। তিনি বলেন, আমরা মানুষের পাশে থেকে মানুষের জন্য কাজ করি তাই অসহায় সাধারণ মানুষদের কথা চিন্তা করে এই “লালমাটির রান্নাঘর” শুরু করেছি। সাধারণ মানুষ আমাদের পাশে রয়েছে আগামী দিনে চেষ্টা করব “লালমাটি রান্নাঘর” কে আরো বেশি দিন ধরে চালিয়ে যেতে।

তবে সিপিআইএমের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সোমা সুর নামে সোনামুখী পৌর এলাকার বাসিন্দা। তিনি বলেন, এখন আমাদের তাঁতের কাজ আগের মতো চলছে না ফলে আর্থিকভাবে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাই এখান থেকে ১৫ টাকায় এই খাবার পেয়ে আমরা অত্যন্ত খুশি। তবে ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে মানুষের বাহবা আদায়ের একটা নতুন রণকৌশল নিয়েছে ব্রাত্য হতে বসা সিপিআইএম এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here