দিল্লীর বাসিন্দার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উধাও, দুর্গাপুর থেকে গ্রেফতার যুবক

0
173

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- অনলাইনে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ, দুর্গাপুর থেকে এক যুবককে গ্রেপ্তার করল দিল্লী পুলিশ। রবিবার তাকে ট্রানজিট রিমান্ডে দিল্লি নিয়ে যাওয়া হয়। ধৃত যুবকের নাম মঙ্গল মুখার্জী। বাড়ি দুর্গাপুরের নিউ টাউনশিপ থানার মামরার সুভাষপল্লীতে। যদিও প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে বন্ধুকে বিশ্বাস করেই প্রতারণার ঘটনায় ফেঁসে গেছে বছর ১৯ এর মঙ্গল। দুর্গাপুর আদালতের সরকারী কৌশলী দেবব্রত সাইঁও একই কথা জানিয়েছেন। তাঁর দাবি শুধুমাত্র বন্ধু প্রীতির জন্য এই ঘটনা ঘটেছে, আর যার ফাঁদে পড়ে গেছে মঙ্গল মুখার্জী।

ঘটনার সূত্রপাত মাস ছয়, সাত আগে। ধৃত ও তার পরিবারের দাবি শান্তনু নামে দুর্গাপুরের আড়রা গ্রামের এক যুবক বেসরকারি ব্যাঙ্কে জিরো ব্যালান্সে অ্যাকাউন্টে খুলে দেওয়ার কথা জানায়। শান্তনু মঙ্গলের বন্ধু হওয়ায় তাকে বিশ্বাস করে ভোটার কার্ড আধার কার্ড সহ নিজের যাবতীয় তথ্যের প্রতিলিপি তাকে দেয়। এরপরই শুরু হয়ে যায় লকডাউন। মাঝে প্রায় সাত মাস কেটে গেলেও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত কোনও তথ্যই আর নেয়নি মঙ্গল। এমনকি ব্যাঙ্কের পাস বুক বা চেক বুক চায়নি বন্ধুর কাছ থেকে। অন্যদিকে সম্প্রতি কান্তা রাউড নামে দিল্লির এক বাসিন্দার অ্যাকাউন্ট থেকে ১লক্ষ ৫৯ হাজার ২৯৭টাকা উধাও হয়ে যায়। দিল্লীর সাউথ ক্যাম্পাস থানাতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে দিল্লি পুলিশ জানতে পারে দুর্গাপুরের বাসিন্দা মঙ্গল মুখার্জীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে উধাও হওয়া টাকা লেনদেনের যোগ রয়েছে। রবিবারই দিল্লি পুলিশ দুর্গাপুরে পৌঁছে নিউ টাউনশিপ থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে মঙ্গলের বাড়িতে হানা দেয়। সেখান থেকেই বছর ১৯ এর মঙ্গলকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় তাঁরা। পাশাপাশি মঙ্গলের বন্ধু শান্তনুর বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। যদিও তার হদিশ মেলেনি।

রবিবার বিকেলের ট্রেনে মঙ্গলকে নিয়ে দিল্লি রওনা দেয় পুলিশ। দিল্লি পুলিশ অবশ্য তদন্তের বিষয়ে মুখ খুলতে চায়নি। সুরিন্দর সিংহ নামে দিল্লী পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এখনই বিস্তারিত কিছু জানানো যাবেনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here