বেহাল রাস্তা মেরামতির দাবিতে কাঁকসার ত্রিলোকচন্দ্রপুর পঞ্চায়েতে স্মারকলিপি বিজেপির

0
225

সংবাদদাতা,কাঁকসাঃ- কাঁকসার পলাশ ডাঙ্গার বাসিন্দা আশারথী চৌধুরী ভাঙা মাটির বাড়িতে কোনো মতে বসবাস করেন। গত প্রায় ১বছর আগে সরকারি বাড়ির জন্য আবেদন করেন।সেই মত বাড়ি তৈরির টাকাও গত কয়েকমাস আগে তার একাউন্টে জমা পরে। কিন্তু সমস্যায় পড়েছেন রাস্তা না থাকার কতেণে। তিনি বাড়ি তৈরির সরঞ্জাম আনাতে পারছেন না। আশারথী দেবীর ছেলে জানিয়েছে কাঁকসা ত্রিলোকচন্দ্র পুর পঞ্চায়েত দ্রুত বাড়ি নির্মাণ কাজ শুরু করার জন্য তাগাদা দিচ্ছে। কিন্তু প্রায় এক কিলোমিটার বেহাল রাস্তার জন্য বাড়ি নির্মাণ সামগ্রী আনিয়ে বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু করতে পারছেন না।

বেহাল রাস্তা মেরামতের কথা বারবার প্রশাসন কে জানিয়েও কোনো ফল হয়নি বলে দাবি আশারথীদেবীর। শুধু আশারথীদেবীই নন গ্রামের বাসিন্দাদেরও বেহাল রাস্তা নিয়ে আভীজীট অভিযোগ বিস্তর । গ্রামের এক বাসিন্দা বলেন বর্ষার সময় সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়তে হয়। বৃষ্টির পর রোদের অপেক্ষা করতে হয় মাটি শুকানোর।তার পরেই হাঁটা চলা যায় ওই রাস্তায়। গ্রাম ছেড়ে বাজারঘাটে গেল প্রায় এক কিলোমিটার পায়ে হেঁটে যেতে হয়।তার পরে পাকা রাস্তায় উঠে বাইকে কিংবা টোটোয় করে নিজেদের গন্তব্যে পৌছাতে হয়।
বুধবার ফের আশারথী দেবী কাঁকসা ত্রিলোকচন্দ্র পুর পঞ্চায়েতের কাছে সমস্যার কথা লিখিত ভাবে জানান।
পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে সমস্যার কথা স্বীকার করে বেহাল রাস্তা দ্রুত মেরামত করার কথা জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে আশারথীদেবীর পাশে দাঁড়িয়েছে কাঁকসা ব্লক বিজেপি। পলাশডাঙ্গা সহ বিভিন্ন এলাকার বেহাল রাস্তা মেরামতের দাবি জানিয়ে কাঁকসা ত্রিলোকচন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সামনে বিক্ষোভে বসে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। এদিন বিক্ষোভে যোগ দেন বর্ধমান সদরের জেলা সহ সভাপতি রমন শর্মা।তিনি জানিয়েছেন কাঁকসার বিভিন্য এলাকায় রাস্তা ঘাট বেহাল হয়ে পড়েছে সেদিকে কারোর কোনো নজর নেই। শুধু কাটমানি খেতে ব্যাস্ত তৃণমূলের নেতারা। এদিন বিক্ষোভ শেষে কাঁকসা ত্রিলোকচন্দ্র পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কাছে ডেপুটেশন দেয় বিজেপি কর্মীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here