অবশেষে শুরু হল দুর্গাপুর ব্যারেজে পৃথক ব্রিজ তৈরীর কাজ

0
10038

নিজস্ব প্রতিনিধি, দুর্গাপুরঃ দীর্ঘ টালবাহানার পর অবশেষে দুর্গাপুর ব্যারেজের পাশেই নতুন ব্রিজ পেতে চলেছেন দুর্গাপুর ও বাঁকুড়াবাসী। পুরনো ব্রিজের ওপর থেকে যানবাহনের চাপ কমাতে এই নতুন ব্রিজের কাজ শুরু হলে শুক্রবার থেকে। ডিভিসি সূত্রে জানা গেছে, পুরনো ব্রিজের দৈর্ঘ্য বরাবর প্রায় ১ কিমি লম্বা এই নতুন ব্রিজ তৈরী হয়ে গেলে যেমন যানবাহনের চাপ কমবে তেমনি পুরনো ব্রিজের রক্ষনাবেক্ষনের কাজেও গতি আসবে। কারণ, বহু বছরের পুরনো এই ব্রিজ এবং দামোদর নদীর জল সংগ্রহের জন্য যে লকগেটগুলি বর্তমান ব্রিজে রয়েছে সেগুলির ক্ষমতাও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কমে আসছে। গত বছর এরকমই একটি পুরনো লকগেট জলের চাপে ভেঙে গিয়ে বিপত্তি ঘটেছিল। রাতারাতি ব্যারেজের জলাধার থেকে সমস্ত জল বেরিয়ে যাওয়ায় সপ্তাহব্যাপী ব্যাপক জলসংকটে পড়েছিল দুর্গাপুর শহর। সেই ঘটনারই যাতে পুনরাবৃত্তি না হয় তার জন্য তখনই দুর্গাপুর ব্যারেজের পাশে বিকল্প নতুন ব্রিজ তৈরীর প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেছিল পশ্চিমবঙ্গ সেচ দফতর। দুর্গাপুর ব্যারেজ পরিদর্শনে এসে দুর্গাপুর ব্যারেজের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছিলেন তৎকালীন সেচমন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জী। সেইমতো শুক্রবার থেকে শুরু হয়ে গেল নতুন ব্রিজ তৈরীর কাজ। জানা গেছে, প্রাথমিক পর্যায়ে নতুন ব্রিজ তৈরীর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। ব্রিজ তৈরীর কাজ শেষ হলে নতুন ব্রিজেও লকগেট বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে সেচ দফতরের। কারণ নতুন লকগেট বসানো হলে যেমন ব্যারেজের জলধারণ ক্ষমতা বাড়বে তেমনি বর্তমান ব্যারেজের ব্রিজ এবং লকগেটগুলি সংস্কার করার জন্য প্রয়োজনীয় সময়ও পাওয়া যাবে। শুধু তাই নয়, বছরের পর বছর ধরে রিভার বেডে যে পলি জমেছে সেই পলি তুলে ফেলতে পারলে দামোদরের নাব্যতাও অনেকটা বাড়বে বলে মনে করছে ডিভিসি ও পশ্চিমবঙ্গ সরকার। স্বভাবতই, নতুন ব্রিজ তৈরীর খবরে খুশী দুর্গাপুর ও বাঁকুড়ার সাধারণ মানুষ।