দীর্ঘ টালবাহানার অবসান, বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে বিজপি প্রার্থী সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া

0
660

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। অবশেষে ভোটের নামমাত্র কয়েকদিন আগে বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে লোকসভা ভোটের বিজেপি প্রার্থীর নাম ঘোষিত হল। আসন্ন লোকসভা ভোটে এবার বিজেপির হয়ে অন্যান্য বিরোধীদের বিপক্ষে ভোট যুদ্ধে লড়বেন পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোলের আদি বাসিন্দা সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া। রবিবার বিজেপির কেন্দ্রীয় নির্বাচনী দপ্তর থেকে তাঁর নাম ঘোষণা হওয়ার পরেই বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে বিজেপির অন্দরে খুশীর হাওয়া। কারণ, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে প্রার্থী ঘোষণা নিয়ে বিজপির অন্দরেই চাপা ক্ষোভ দেখা দিয়েছিল। কারণ দলীয় তরফে দাবী করা হয়েছিল স্থানীয় কোনও পরিচিত মুখকেই বিজপির প্রার্থী পদে আনা হোক। কখনও শোনা যায়, তৃণমূল ঘনিষ্ঠ আসানসোলের এক বাহুবলী নেতা কৃষ্ণেন্দু বাবুর নাম, কিন্তু তিনি আপাতত জেলে থাকায় ও তার অন্তর্বর্তী জামিন না হওয়ায় তাকে সরিয়ে রাখা হয়। তারপরেই নাম ওঠে কলকাতার অর্পিতা দেবীর নাম, যিনি আদতে একজন বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার কিন্তু জেলা বিজেপি থেকে তা মেনে নেওয়া হয়নি। শেষবারের মতো এক প্রভাবশালী তথা বর্তমানে কংগ্রেস বিধায়ক ও তৃণমূল কংগ্রেস অনুগামী দুর্গাপুরের বিশ্বনাথ বাবুর নাম উঠে আসে, কিন্তু বিশ্বনাথ বাবু নিজেই বিজেপিতে যোগদানের জল্পনাকে নিছকই নিন্দুকদের রসিকতা বলে উড়িয়ে দেন। তারপর থেকেই ফেসবুক, ট্যুইটার, ইন্সটাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়াতে গরু খোঁজার মতো খোঁজা হচ্ছে বিজেপি প্রার্থী বলে রসিকতা শুরু হয় ও তৎসহ কোনও হেভিওয়েট বহিরাগতকে বিজেপির প্রার্থী করা হবে বলে জল্পনাও খুব চলে। কিন্তু বাইরের কোনও প্রার্থীকে এই কেন্দ্রে দাঁড় করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও স্থানীয় বিজেপি নেতা-নেতৃত্বের অসন্তোষে তা বাতিল হয়। তাই রবিবাসরীয় দিনে আসানসোলের নিবাসী সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়ার নাম প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ। রাজনীতির আঙিনায় সুরিন্দর সিং নতুন মুখ নন। এর আগে ২০১৪ সালেও তিনি বিজেপির হয়ে ভোটে দাঁড়িয়ে জয়লাভ করেছিলেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রকে প্রতিমন্ত্রী হিসেবেও নিজের দায়িত্বভার ভালোই সামলেছেন সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া। বর্তমানে কর্মসূত্রে দিল্লীতে থাকলেও তিনি যে আদপে পশ্চিম বর্ধমানের বাসিন্দা এবং তাঁর স্ত্রী যে খোদ দুর্গাপুরের বাসিন্দা তাও জানাতে ভোলেন নি তিনি। বিজেপি প্রার্থী হিসেবে ভোটে জয়লাভ করলে তাঁর নিজের কেন্দ্রে কোন কোন বিষয়ে নজর দেবেন সেবিষয়ে তিনি জানান, দুর্গাপুরের সঙ্গে সঙ্গে তিনি বর্ধমানের দায়িত্বেও রয়েছেন। তাই দুর্গাপুরের সঙ্গে সঙ্গে কৃষিপ্রধান জেলা বর্ধমানকে নিয়ে তাঁর কিছু বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানালেন বিজেপি প্রার্থী। রবিবার বিজেপি প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা হয়ে গিয়েছে, এবার পালা প্রচারের ময়দানে নামা। আগে থেকে বিরোধী পক্ষ প্রচারের ময়দানে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে। জানা গেছে, সোমবার দিল্লি থেকে দুর্গাপুরে ফিরেই পুরোদমে প্রচারে নামছেন সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া। সম্ভবত মঙ্গলবার মনোনয়ন পেশের শেষ দিনে বিজেপির হয়ে মনোনয়ন পেশ করবেন তিনি। এদিন দুর্গাপুর-বর্ধমান লোকসভা কেন্দ্রের পাশাপাশি কৃষ্ণগঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থীরও নাম ঘোষণা করেছে বিজেপি। সেখানে আশিস কুমার বিশ্বাসকে প্রার্থী করা হয়েছে। রবিবার বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হয়ে যাওয়ায় রাজ্যে ৪২টি আসনের সবকটিতেই প্রার্থী ঘোষণা করে দিল বিজেপি। এবার অপেক্ষা ভোট যুদ্ধের।