দুর্গাপুরের বেনাচিতি কান্ডে ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদ, অভিযুক্ত দুই সিভিক পুলিশকে বরখাস্ত

0
4685

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ গত ৩রা জুন দুর্গাপুরের বেনাচিতিতে সিভিক পুলিশের তোলাবাজি এবং গাড়ি চালককে বেধড়ক মারধরের ঘটনা। দিনের পর দিন সিভিক পুলিশের ‘দাদাগিরি’ বেড়ে চলার প্রতিবাদে বুধবার বেনাচিতি বাজারে ব্যবসা বন্ধ রেখে প্রতিবাদে সামিল হলেন ঘোষ মার্কেটের মাছ ব্যবসায়ীরা। তাদের অভিযোগ, দিনের পর দিন বাড়ছে সিভিক পুলিশের দৌরাত্ম্য, অবিলম্বে সেই দৌরাত্ম্যে লাগাম না লাগালে ভবিষ্যতে সমস্ত ব্যবসায়ী অনির্দিস্টকালের ধর্মঘটের পথে যাবেন বলে হুমকি দিয়েছেন তারা। উল্লেখ্য, গত ৩রা জুন বেনাচিতি ঘোষ মার্কেটে মাছ নিয়ে আসার পথে মুচিপাড়ায় এক গাড়ি চালককে দাঁড় করায় নিউটাউনশিপ থানা এলাকার দুই সিভিক পুলিশ ও এক সাব-ইন্সপেক্টর। ওই গাড়ি চালকের কাছ থেকে ৫০০ টাকা দাবি করা হয় বলে অভিযোগ। কিন্তু ওই গাড়ি চালক টাকা না দিয়ে বেনাচিতি চলে এলে পুলিশের গাড়িটি তার পিছু নেয়। এরপর বেনাচিতিতে ওই গাড়ি চালক গাড়ি দাঁড় করাতেই পুলিশের গাড়ি থেকে দুই সিভিক ভলেনটিয়ার নেমে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে এলোপাথাড়ি লাথি, ঘুসি মারতে শুরু করে বলে অভিযোগ। ওই যুবকের চিৎকারে আশেপাশের ব্যবসায়ীরা ছুটে গেলে উত্তেজিত ব্যবসায়ীরা অভিযুক্ত ওই সাব-ইন্সপেক্টর এবং দুই সিভিক ভলেন্টিয়ারকে ও পুলিশের গাড়ির চালককে বেধড়ক মারধর শুরু করে। পরে খবর পেয়ে এ-জোন ফাড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকর্মীদের উদ্ধার করে। সিভিক পুলিশের মারে গুরুতর জখম হয় গাড়ি চালক, বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সে। অন্যদিকে পুলিশ এবং সিভিক পুলিশের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ সামনে আসার পর অভিযুক্ত দুই সিভিক পুলিশকে ইতিমধ্যেই চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে, সেইসঙ্গে সেইসময় ডিউটিতে থাকা এক সাব-ইন্সপেক্টরকে অনির্দিস্টকালের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে। তবে কর্তব্যরত পুলিশকর্মীকে মারধরের ঘটনায় অভিযুক্তদের খোঁজে এখনও তল্লাশী চালাচ্ছে পুলিশ।