সপ্তাহ পেরোলেও দুর্গাপুরে অমিল সিএনজি গ্যাস, মহকুমাশাসকের দ্বারস্থ অটো চালকেরা

0
773

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ রাত পেরোলেই পূরণ হবে এক সপ্তাহ। অথচ সপ্তাহান্তে এসেও এখনও দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে স্বাভাবিক হল না সিএনজি গ্যাস পরিষেবা। ফলে চরম সমস্যায় দুর্গাপুরের কয়েকশো অটো চালক। সমস্যার সমাধান খুঁজতে মঙ্গলবার দুর্গাপুর প্রশাসনিক ভবনের সামনে ধর্নায় বসে মহাকুমাশাসককে স্মারকলিপি দিলেন অটো চালকেরা। স্থানীয় বিজেপি নেতা লক্ষ্মণ ঘড়ুইয়ের নেতৃত্বে এই বিক্ষোভে সামিল হন কয়েকশো অটো চালক। বিজেপির বক্তব্য, পরিকল্পিতভাবে সিএনজি পরিষেবা বন্ধ করে অটো চালকদের রুটি-রুজি আটকে দেওয়ার চক্রান্ত করছে শাসকদল। উল্লেখ্য সমস্যার সূত্রপাত, গত সপ্তাহ থেকে। দুর্গাপুরের মোট ১২০০ অটোর সিএনজি গ্যাস রিফিলিং-র জন্য সিটিসেন্টার ও মেইন গেট এলাকার দুটি পেট্রোল পাম্পে সিএনজি পরিষেবা দেওয়া হয় আসানসোল থেকে। কিন্তু কয়েকদিন আগে সিএনজি গ্যাস প্রদানের জন্য যে ট্যাঙ্কার সরবরাহকারী সংস্থা রয়েছে তাদের তরফে ধর্মঘট শুরু হওয়ায় দুর্গাপুরের এই দুই সিএনজি ফিলিং স্টেশনে গ্যাস পরিষেবা স্তব্ধ হয়ে যায়। কিন্তু ট্যাঙ্কার সংগঠনের দাবি পূরণ হয়ে যাওয়ার পর রবিবার থেকে সাময়িকভাবে গ্যাস পরিষেবা চালু হলেও ফের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তা বন্ধ হয়ে যায় কোনও অজানা কারণে। আর এই ঘটনার জেরে ক্ষোভে ফেটে পড়েন অটো চালকরা। তাই বাধ্য হয়ে তারা সোমবার সকাল থেকে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের উপস্থিতিতে দুর্গাপুর মহকুমাশাসকের দফতরের সামনে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয়। বিজেপির তরফে মহকুমাশাসকের দফতরে স্মারকলিপিও পেশ করা হয়। মহকুমা শাসক অনির্বাণ কোলে অটো চালকদের স্মারকলিপির প্রত্যুত্তরে জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই জেলাশাসকের সঙ্গে কথা হয়েছে। অবিলম্বে সিএনিজি গ্যাসের সমস্যা মিটে যাবে। পাশাপাশি তিনি এও জানিয়েছেন, সিএনজি গ্যাস সরবরাহকারী সংস্থাগুলির সাথে আগামী সপ্তাহে বৈঠকে বসবেন তিনি। সেখানে শিল্পাঞ্চলের বুকে আরও কয়েকটি সিএনজি ফিলিং স্টেশন বসানোর বিষয়ে আলোচনা করা হবে।