ভাগাড়কান্ডের ছায়া এবার দুর্গাপুরের হেলথ ওয়ার্ল্ড হাসপাতালের খাবারে, দেখুন ভিডিও

0
18829

নিজস্ব প্রতিনিধি, দুর্গাপুরঃ ফের দুর্গাপুরে ভাগাড়কান্ডের ছায়া। এবার হাসপাতালের ক্যান্টিনে পচা খাবার বিক্রি করার অভিযোগ তুললেন হাসপাতালে আসা রোগীর পরিবার-পরিজনেরা। ঘটনা দুর্গাপুরের গান্ধী মোড় সংলগ্ন হেলথ ওয়ার্ল্ড হাসপাতালের। খবরের সূত্র অনুসারে, বুধবার সকালে এক ব্যক্তি হাসপাতালের ভেতরে ওই খাবারের কাউন্টার থেকে একটি পিৎজা কেনেন। কিন্তু সেই পিৎজা মুখে নিতেই তিনি বুঝতে পারেন যে পিৎজা থেকে পচা গন্ধ বেরোচ্ছে। একটু ভালভাবে পরীক্ষা করতেই তিনি দেখেন পিৎজার ভেতরে ফাঙ্গাস হয়ে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি বিষয়টি হাসপাতালের খাবারের কাউন্টারে থাকা একজনকে জিজ্ঞাসা করলে শুরু হয়ে যায় দুপক্ষের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক। যদিও পচা খাবারের কথা স্বীকার করে নিয়ে ওই ক্রেতার টাকা ফেরত দিয়ে দেন ক্যান্টিনের দায়িতবপ্রাপ্ত সেলস গার্ল চন্দনা দত্ত। শুধু তাই নয়, তড়িঘড়ি উক্ত অভিযোগকারী ব্যক্তিকে নিজেদের ব্যক্তিগত রুমে নিয়ে শুরু হয়ে যায় মগজ ধোলাই। প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, যেখানে রোগীরা আসেন চিকিৎসার জন্য এবং রোগ সারাতে সেই হাসপাতালের ভেতরে কি করে এই অস্বাস্থ্যকর খাবার বিক্রি করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, বাইরের তুলনায় হাসপাতালের ভেতরে এই কাউন্টারগুলিতে অনেক বেশী দামে খাবার বিক্রি করা হয়। তাহলে কেন বেশী দাম দিয়েও রোগীর পরিবারদের পচা খাবার দেওয়া হবে। যদিও কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা চন্দনা দত্ত নামে এক বিক্রেতার সাফাই, খাবার সবসময় ফ্রিজিং অবস্থাতেই রাখা হয়, কিন্তু রাতের দিকে রোগীর পরিজনেরা সেই ফ্রিজের প্লাগ খুলে মোবাইল চার্জ করেন। সম্ভবত সেইকারনেই খাবারে পচন ধরেছিল। কিন্তু এই হাসপাতালের বিরুদ্ধে এই অভিযোগই প্রথমবার নয়। হাসপাতালের জন্মলগ্ন থেকেই একের পর এক বিতর্ক লেগেই রয়েছে এই হাসপাতালকে কেন্দ্র করে। এর আগেও হাসপাতালে আসা রোগীদের ওপর দাদাগিরির অভিযোগ উঠেছিল হাসপাতালের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা স্থানীয় ফরিদপুর এলাকার একটি নিরাপত্তারক্ষী সরবরাহকারী সংস্থার বিরুদ্ধে। সেইবারও নিরাপত্তারক্ষীদের অভব্য আচরণ নিয়ে হইচই পড়ে গিয়েছিল দুর্গাপুর জুড়ে। বহু সংবাদমাধ্যমের মতো আমরাও সেই খবর তুলে ধরেছিলাম পাঠকদের কাছে গত ৩০শে নভেম্বর, ২০১৮। রইল সেই খবরের প্রতিচ্ছবি।

বুধবারও তার ব্যতিক্রম ঘটে নি। হাসপাতালে পচা খাবারের ঘটনা সামনে আসতেই তড়িঘড়ি সেই খাবারের কাউন্টার খালি করতে শুরু করে নিরাপত্তারক্ষীরা। মুহূর্তের মধ্যে সেই খাবারের কাউন্টার থেকে সরিয়ে ফেলা হয়। এখানেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে, খাবারের গুণমানে যদি কোনও ঘাটতি না থাকত তাহলে খাবার সরিয়ে দেওয়া হল কেন? পাশাপাশি এই হেলথ ওয়ার্ল্ড হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষীদের এমন কি দাপট যে হাসপাতালের খাবারের ব্যাপারেও তাদের হস্তক্ষেপ করতে হল। নাকি এও তাদের অদৃশ্য কোনও ক্ষমতার জাহিরের বহিঃপ্রকাশ। কারণ এই সমস্ত নিরাপত্তারক্ষীদের কাউকেই আবার সাংবাদিকদের বলতে শোনা গেল দাদা ছবি করবেন না, ছবি বা ভিডিও যা করেছেন তা মুছে দিন। হাসপাতালের একজন নিরাপত্তারক্ষী হয়ে কোনও সাংবাদিকের কাজে কোন সাহসে তারা বাধা দিতে পারেন? যদিও গোটা ঘটনায় হেলথ ওয়ার্ল্ড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মুখে কলুপ এঁটেছে। রইল ঘটনার সময়কার সেই ভিডিও।