পুলিশ ও স্পেশাল অপারেশন গ্রূপের যৌথ অভিযানে উদ্ধার ৩ কোটি টাকার মাদক, গ্রেপ্তার ২

0
484

সংবাদদাতা, মুর্শিদাবাদ:- মাদক পাচারকারীর দল যদি হয় ক্ষুরধার বুদ্ধির অধিকারী, তো মুর্শিদাবাদের ইন্দো-বাংলা সীমান্তের পুলিশও দাবাং। মুর্শিদাবাদ থানার পুলিশ ও স্পেশাল অপারেশন গ্রূপ(এস.ও.জি) এর যৌথ অভিযানে চালিয়ে এল সম্প্রতি কালের বড়সড় সাফল্য। উদ্ধার হল কয়েক কোটি টাকা মূল্যের উন্নত মানের মাদক {হেরোইন}। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হল দুই পাচারকারীকেও। ধৃতদের নাম শেখ সাফির ও প্রফুল্ল পাত্র। প্রাথমিক জেরায় জানা যায় ধৃত সাফিরের বাড়ী পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী ও প্রফুল্লর উড়িষ্যা রাজ্যের বালেশ্বরে এলাকায়। এদিন তাদের আজিমগঞ্জ–কাটোয়া শাখার লালবাগ কোর্ট রোড স্টেশান লাগোয়া একটি হোটেলের পাশ থেকে বমাল গ্রেপ্তার করা হয়। এই ব্যাপারে জেলার নব নিযুক্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তন্ময় সরকার বলেন, “প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে ধৃতরা স্থানীয় এলাকা থেকে হেরোইন আমদানি করে রাজ্যের বাইরে পাচার করার উদ্দ্যেশে লালবাগ স্টেশান রওনা দেয় । তার আগেই পুলিশের হাতে ধরা পড়ে ওই মাদক কারবারিরা। অনুমান করা হচ্ছে ধৃতদের কাছ হেরোইন পাচার চক্রের আরও বেশ কিছু তথ্য মিলবে”। এদের সকলের বিরুদ্ধে ‘নার্কটিক ড্রাগস এন্ড সাইকট্রপিক সাবস্টান্স এক্ট’ মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার এই পাচারকারীদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭দিনের পুলিশি হেফাজত চেয়ে স্পেশাল এনডিপিএস আদালতে তোলা হয়। আদালত সূত্রে পাওয়া শেষ খবরে জানা যায় বিচারক তাদের পুলিশ হেফাজত মঞ্জুর করেন। এদিকে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সীমান্তে মাদক রমরমা বন্দ করতে বদ্ধ পরিকর মুর্শিদাবাদ পুলিশ। সেই মত সৌর্স মারফৎ খবর পেয়ে এস ও জি ও মুর্শিদাবাদ থানার পুলিশ ব্লু-প্রিন্ট বানিয়ে সাদা পোশাকে লালবাগ ওৎ পাততে শুরু করে লালবাগ কোর্ট রোড স্টেশন লাগোয়া এলাকায়। কিন্তু সময় পেরিয়ে গেলেও পাচারকারিদের টিকি না মেলায় খানিকটা বিভ্রান্ত হয়ে পড়ে সকলে। কিন্তু পাকা খবর থাকায় হাল ছাড়েননি পুলিশ বাহিনি। আর তার পরেই মিলে সাফল্য। সোর্সের কথা মত দুই মধ্য বয়স্ক ব্যক্তি কে দুটি হাত ব্যাগ নিয়ে গুটি গুটি পায়ে লালবাগ স্টেশনের দিকে যেতে লক্ষ করা যায়। এদিকে পাচারকারিরা পুলিশের গন্ধ পাওয়ার আগেই দুই পাচারকারিকে জালে তুলতে সমর্থ হয় পুলিশ। ধৃতদের তল্লাশি চালাতে গিয়ে ওই হাত ব্যাগ থেকে প্যাকেট প্যাকেট উন্নত জাতের হেরোইন বেরিয়ে আসে। জনসমক্ষে ওই মারণ মাদক ওজন করলে দেখা যায় ছোট ছোট ১৫ টি পলিথিনের প্যাকেটে মোট ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম হেরোইন রয়েছে। উদ্ধার হওয়া ওই হেরোইনের আন্তর্জাতিক বাজার দর প্রায় তিন কোটি টাকার কাছাকাছি। ধৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসা বাদে পুলিশ জানতে পেরেছে তারা দীর্ঘ দিন এই কারবারের সঙ্গে যুক্ত। মুলত লালগোলা এলাকা থেকে হেরোইন ক্রয় করে উড়িষ্যা সহ সংলগ্ন এলাকায় ওই মাদক পাচার করে থাকে। পুলিশের নজর এড়াতে লালগোলা থেকে বাসে করে এসে ভাগীরথী পেরিয়ে ওই পাচারকারীরা বুধরা এলাকা পৌছায়। সেখান থেকে লালবাগ কোর্ট স্টেশন হয়ে আজিমগঞ্জ থেকে দূর পাল্লার ট্রনে করে গন্তব্যে পৌঁছান উদ্দেশ্য ছিল তাদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here