দুর্গাপুরের সেপকো ১৫ এ স্ট্রিট করোনা কন্টেইনমেন্ট জোন ঘোষণা, দুর্গাপুর ও বর্ধমান পৌরসভা ৩১ শে জুলাই অবধি বন্ধ সাধারন নাগরিকদের জন্য

0
2580

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- দুর্গাপুরের সেপকো টাউনশিপের ১৫ এ স্ট্রিটের ২৫ নং বাড়িতে দিন কয়েক আগে ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল ওই পরিবারে। বাড়িতে আত্মীয় স্বজনের সমাগম ঘটেছিল আর তার থেকে করোনা সংক্রমণ শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে। একই পরিবারে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১১ জন। আজ ওই পরিবারের ৯ জনকে দুর্গাপুরের সনোকা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন সেপকো টাউনশিপ এলাকা কন্টেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করছে। এই নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক অভিযোগ। সিপিএম নেতারা অভিযোগ করেন রাজ্যে ভেঙে পড়েছে স্বাস্থ্য ব্যাবস্থা। অন্যদিকে তৃণমুল নেতারা দাবি করেন রাজ্য সরকার কে বদনাম করার জন্য সিপিএম ও তার বি টিম বিজেপি সমালোচনা করছে। এ দিকে দুর্গাপুরের সাধারণ বাসিন্দারা করোনা আক্রান্ত ভুগছেন। তাদের একটাই প্রশ্ন তা হলে কি দুর্গাপুরে কি গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে ? সময়ই তার উত্তর দেবে। রাতেই সেপকো টাউনশিপের ১৫ এ স্ট্রিট টি কে বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দেওয়া হবে সাথে জীবানুমুক্ত করা হবে জেলা প্রশাসনের তরফে থেকে। অন্য আরেকটি খবরে চাঞ্চল্য ছড়ায় দুর্গাপুরে। একটি অসমর্থিত সূত্র থেকে জানা গেছে দুর্গাপুরের সিটি সেন্টারে রাজ্য সরকারের আবাসনের, সি টাইপে এক স্বাস্থ্যকর্মীর কোভিড পজিটিভ পাওয়া গেছে।

পশ্চিম বর্ধমান জেলার আরো বেশ কয়েকটি জায়গাকে ইতিমধ্যেই করোনা কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। যেমন আসানসোলের দক্ষিণ ধাদকা এলাকার রূপকথা যা কিনা আসানসোলের উত্তর থানার অধীন। আবার আসানসোলের মহিশিলা কলোনির পূর্ব পাড়ার সদাপুকুর এলাকা যা কিনা আসানসোল দক্ষিণ থানার অন্তর্গত সেটি কে ও কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বাঁশ দিয়ে ইতিমধ্যেই ঘিরে ফেলা হয়েছে কন্টেইনমেন্ট জোন গুলিকে।

এদিকে আজ দুর্গাপুর নগর নিগমের মেয়র দিলীপ অগস্তি বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন আগামী ১৫ই জুলাই থেকে ৩১ শে জুলাই অব্দি বন্ধ থাকবে দুর্গাপুর নগর নিগমের সাধারন নাগরিকদের জন্য। যে হারে দুর্গাপুরে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে চিন্তিত দুর্গাপুরের মহানাগরিক। তিনি ক্ষোভের সাথে জানিয়েছেন যে কেউই মানছেন না করোণা স্বাস্থ্যবিধির। তাই বাধ্য হয়ে দুর্গাপুর নগর নিগমকে সাধারণ বাসিন্দাদের জন্য বন্ধ রাখা হলো। তবে জরুরী পরিষেবা ও সাধারণ যে সমস্ত কাজ আছে তা অনলাইনে করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

শুধু দুর্গাপুরের পৌরসভাই নয় বন্ধ থাকছে বর্ধমান পৌরসভা ও। আগামী ৩১ শে জুলাই অবধি। সাধারণ নাগরিকদের প্রবেশ বন্ধ রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এক পৌরসভার আধিকারিক। তিনি আরো জানিয়েছেন যে বর্ধমান পৌরসভার মূল ফটকের সামনে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প করে সেখান থেকেই জরুরী কাজে আসা মানুষজনকে সহায়তা করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here