নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মজয়ন্তী পালন ও বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়ানুষ্ঠান ডি.এ.ভি.মডেল স্কুল দুর্গাপুরে

0
23

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- ২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ডি.এ.ভি.মডেল স্কুল, দুর্গাপুরে সাড়ম্বরে পালিত হল নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৬ তম জন্মজয়ন্তী। এদিন সকাল ৮ টা নাগাদ এই জন্মদিবস (পরাক্রম দিবস) উপলক্ষে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী সকলে মিলে “একতার দৌড়” প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে এবং জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্যই এই প্রভাতফেরীর আয়োজন। ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে সুভাষচন্দ্র বসুর অবদান এবং তার বিরাট কর্মকান্ড সম্বন্ধে শিক্ষার্থীদের অবগত করানোর জন্যই এই দিনটিকে বিশেষভাবে পালিত হলো ডিএভি মডেল স্কুল, দুর্গাপুরে।

এদিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন শ্রী দেবব্রত ভট্টাচার্য (ডি.আই.জি.পি, জি.সি, সি.আর.পি.এফ) এবং বিশিষ্ট অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শ্রী ভগীরথ সামাই (প্রাক্তন অর্জুন পুরস্কার প্রাপক), শ্রী সুভাষ চন্দ্র দে (জাতীয় ব্যাডমিন্টন প্রশিক্ষক) ও শ্রী কমলেন্দু মিশ্র (জি.এম., হেল্থ ওয়ার্ল্ড হসপিটাল)। এছাড়াও অতিথি-আসন অলংকৃত করেছিলেন বিভিন্ন বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ এবং প্রধান শিক্ষক মহাশয় ও মহাশয়াগণ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই সন্মানীয় অতিথিদের তিলক পরিয়ে একটি চারাগাছ প্রদান করে বরণ করে নেওয়া হয়।

বিদ্যালয়ের প্রথা অনুযায়ী বৈদিক মন্ত্রোচ্চারণের মধ্য দিয়েই এদিনের অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হল। আর তার সাথে তাল মিলিয়ে শিক্ষার্থীরা কবিতা ও গানের মধ্য দিয়ে নেতাজীর প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে। তারপর মাননীয় অধ্যাক্ষ মহাশয়া এবং সম্মানীয় অতিথিবৃন্দ পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়ানুষ্ঠানের শুভ সূচনা করলেন। এর সঙ্গে সঙ্গেই সমবেত কুচকাওয়াজ এবং বিদ্যালয়ের প্রধান ছাত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হয়, যা অন্যান্য শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করে। এরপর বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ও রিজিওনাল অফিসার এবং ডিস্ট্রিক্ট কো-অর্ডিনেটর পাপিয়া মুখার্জি তাঁর স্বাগত ভাষণে উপস্থিত সকল অতিথি, শিক্ষকমন্ডলী ও শিক্ষার্থীদের অভিবাদন জানান। তিনি শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধূলাতেও অংশগ্রহণ করার জন্য নানাভাবে উৎসাহিত করেন। তাঁর সেই উৎসাহমূলক বক্তব্যের সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয়ে যায় বিদ্যালয়ের সমবেত সঙ্গীত, ড্রিল, যোগাসন ও ক্যারাটে প্রদর্শনী। তারপর প্রধান অতিথি শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের উদ্দেশে জানান যে, শুধু পড়াশোনা করলেই হবে না, খেলাধূলাতেও অংশগ্রহণ করতে হবে। প্রয়োজনে যে খেলায় তারা আগ্রহী, সেই খেলা অনুযায়ী কোচিং ক্লাসে ভর্তি হতে পারে। এর মধ্যে দিয়ে তারা ভবিষ্যতে SIA তে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেতে পারে। আর ভালোভাবে খেলাধুলা করলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। এরপর একে একে GO WITH COLOUR, BALANCING THE BALL, SHUTTLE RACE FOR GIRLS, DRAG THE BALL, SPEED STACK, RING THE CONE FOR BOYS, 100 METRE RACE FOR GIRLS, 200 METRE RACE FOR GIRLS, 100 METRE RACE FOR GIRLS, 800 METRE BOYS, 800 METRE GIRLS, HOUSE WISE RELAY RACE, PARENTS FOR FEMALE & MALE, TEACHERS FOR MALE & FEMALE, 50 METRE TUNNEL FOR GIRLS ইত্যাদি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। শেষে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানাধিকারীকে পুরস্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানের অন্তিম লগ্নে বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষা পাপিয়া মুখার্জি মহাশয়া বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন। জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here