অবৈধ ও জাল রেল টিকিট বিক্রির অভিযোগে আরপিএফের হাতে গ্রেপ্তার বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী

0
527

সংবাদদাতা, পানাগড়ঃ- পানাগড় আরপিএফ এনআর ইনফোটেকের দোকানে অভিযান চালিয়ে, ই টিকেটিংয়ের মামলায় ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তারও কম্পিউটার প্রিন্টার এবং অন্যান্য সামগ্রী বাজেয়াপ্ত। আসানসোল রেলওয়ে বিভাগের অধীনে পানাগড় আরপিএফ, আইআরসিটিসির যাত্রীদের কাছে নকল আইডি বানিয়ে অবৈধ ও জাল রেল টিকিট বিক্রির অভিযোগ। পানাগড় বাজার সান্থালিয়া পেট্রোল পাম্পের এনআর ইনফোটেক নামে একটি দোকানে স্থানীয় কাঁকসা থানায় পুলিস ও পানাগড় আরপিএফ বৃহস্পতিবার অভিযান চালায়। দোকানের মালিক রাকেশ গুপ্তকে গ্রেপ্তার করা হয়। আরপিএফ অভিযুক্তের দোকান থেকে কম্পিউটার এবং প্রিন্টার সহ ২৩ টি পুরানো টিকিট বাজেয়াপ্ত করে। অভিযুক্তকে শুক্রবার আসানসোল আদালতে হাজির করানো হবে। এই ঘটনার বিষয়ে পানাগড় আরপিএফ পোস্ট ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মনোজ কুমার যাদব জানান যে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে উপ-পরিদর্শক নবীন রাঠি, সহকারী পরিদর্শক শিশির কুমার, কনস্টেবল কে কে সিংহ পানাগড় বাজার সান্থালিয়া পেট্রোল পাম্পে অবস্থিত একটি দোকানে অভিযান পরিচালনা করে।

দোকানের মালিক রকেশ গুপ্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি জানিয়েছিলেন যে ধৃত রাকেশ ২০১৫ সাল থেকে উল্লিখিত দোকান থেকে ই-টিকিট ব্যবসা করতেন। অভিযুক্ত দোকানদার রকেশ গুপ্ত আইআরসিটির আইডি তৈরি করে লোকজনের কাছে টিকিট বিক্রি করতেন। অভিযোগ পাওয়ার পরে আরপিএফ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দোকানের মালিককে গ্রেপ্তার করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আগামীকাল আদালতে হাজির করা হবে। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে রেলওয়ে আইনের ১৪৩ ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আসানসোল রেল বিভাগের সিনিয়র সেফটি কমিশনার চন্দ্র মোহন মিশ্রার নির্দেশ অনুসরণ করে অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে এই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এই অভিযানের আওতায় অনেক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ই টিকিটিং মামলায় এখনও পর্যন্ত দুজন ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদিকে দুর্গাপুর আর পি এফ পোস্টের ইনচার্জ শ্রী রুপেশ কুমারের নেতৃত্বে দুর্গাপুর শহর জুড়ে জোরদার অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকজন কে জাল আইআরসিটির আইডি তৈরি করে টিকিট বিক্রি করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছেন। রুপেশ কুমার জানান শিল্পাঞ্চল জুড়ে এই জাল রেল টিকিট কারবারীদের দৌরাত্যে সাধারন রেল যাত্রীরা ন্যায্য তৎকাল টিকিট থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তিনি জানান পুরো শহর জুড়ে এই অভিযান চালিয়ে তারা সাফল্য পেয়েছেন এবং আগামী দিনেও এই অভিযান আরো তীব্রতর করা হবে। রেল আমাদের জাতীয় সম্পত্তি তাই তিনি সাধারন শিল্পাঞ্চল বাসীদের কাছে অনুরোধ করেন যে তারা যেন শুধুমাত্র ভারতীয় রেল দ্বারা অনুমোদিত সংস্থা থেকে সঠিক ভাবে রেল টিকিট ক্রয় করেন। জাল রেল টিকিট কারবারীদের রুখতে যেন এর পি এফ কে সহযোগীতা করেন সাধারন শহর বাসী। রেলের ক্ষতি মানে দেশের ক্ষতি। আর পি এফের জাল রেল টিকিট কারবারীদের রুখতে এই উদ্যোগ কে স্বাগত জানিয়েছেন শিল্পাঞ্চল বাসী। দুর্গাপুরের এক বরিষ্ঠ নাগরিক জানান যবে থেকে আর পি এফের দুর্গাপুর পোস্টের ইনচার্জ শ্রী রুপেশ কুমার দায়িত্ব ভার গ্রহন করেছেন তখন থেকেই সাধারন রেল যাত্রীরা নিরাপদ ভাবে চলাফেরা করতে পারছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here