বাঁকুড়া শ্রমিক মেলার মঞ্চ থেকে সামাজিক সুরক্ষা যোজনা প্রকল্পে উপভোক্তার হাতে আর্থিক সাহায্য তুলে দেওয়া হল

0
401

সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ- ‘সাত বারের সাংসদ, তিন বার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও দু’বারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন দু’শো- আড়াইশো টাকার শাড়ি, হাওয়াই চপ্পল পরে যখন টালির ঘরে দিন কাটান তখন দেশের ২০১৪ সালেরর পর থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কেউ কোন দিন একই পোশাক পরতে কেউ কোন দিন দেখেছে’? প্রতিদিন নতুন পোষাক পরে দেশের গরীব মানুষের কথা তিনি ভাবেননা। ঠিক এই ভাষাতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বিঁধলেন রাজ্যের শ্রম, আইন ও বিচার বিভাগীয় মন্ত্রী মলয় ঘটক। রবিবার বাঁকুড়া শহরের নতুনচটি, খ্রীশ্চান ডাঙ্গা চার্চ ময়দানে শ্রমিক মেলার উদ্বোধনী ভাষণে তিনি আরো বলেন, উনি দেশের গরীব মানুষেরকথা না ভেবে ১০ লক্ষ টাকার জ্যাকেট পরেন, হাত ঘড়ির দাম ২৫ লক্ষ টাকা, তেমনি সাম্প্রতিক সময়ে যে চশমা পরে সূর্যগ্রহণ দেখেছিলেন তার দাম ছিল দেড় লক্ষ টাকা। এই অবস্থায় বুঝতে হবে কোন দল বা কোন মানুষটি সাধারণ গরীব মানুষের কথা ভাবে। রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত বেশ কিছু ইতিবাচক প্রকল্প তৈরী করেছেন বলেও তিনি দাবী করেন। পরে মন্ত্রী মলয় ঘটক সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, বাম আমলে ২০০০ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত শ্রম দপ্তরের অনুদান ছিল মাত্র ৯ কোটি। এখন সেখানে ১৬৮০ টাকা। এদিন বাঁকুড়া শ্রমিক মেলা থেকেই ৪ কোটি টাকার অনুদান তুলে দেওয়া হয়েছে। এখনোপর্যন্ত সারা রাজ্যে সামাজিক সুরক্ষা যোজনা প্রকল্পে ২০ লক্ষ মানুষ নাম নথিভূক্ত করেছেন। জেলায় জেলায় শ্রমিক মেলা গুলিতেও নাম নথিভূক্তকরণের কাজ চলছে। সব মিলিয়ে প্রায় আরো ১৫ লক্ষ মানুষ এই
কল্পের আওতায় আসবেন বলে তিনি আশাপ্রকাশ করেন। এদিন বাঁকুড়া শ্রমিক মেলার মঞ্চ থেকে সামাজিক সুরক্ষা যোজনা প্রকল্পে বেশ কিছু উপভোক্তার হাতে চেক তুলে দেওয়া হয়। মেলা চলবে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত।এদিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, জেলা পরিষদের সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্ম্মু, পৌরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত, বিধায়ক সম্পা দরিপা, অরুপ চক্রবর্ত্তী প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here