ভুতুড়ে কান্ড ইস্পাত নগরীর তিলক রোড বস্তিতে

0
5426

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- করোণা ভাইরাসের দাপটে ইতিমধ্যেই মানুষজন গৃহবন্দি আছেন। রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বেশকিছু বিধিনিষেধ শিথিল করার পর মানুষজন এখন অল্প অল্প করে কাজে-কর্মে ফিরছেন। ঘূর্ণিঝড় আমফানের পর দুর্গাপুর ও তার আশেপাশের অঞ্চলের গ্রীষ্মকালীন গরম চরম মাত্রায় পৌঁছায়। মানুষ গরমের থেকে রেহাই পেতে গাছের তলা বা ফাঁকা জায়গায় হওয়ার দিকে মুখ করে বসতে চাইছেন। মানুষজন তাই শিল্পাঞ্চলের এখন জানলা খুলেই রীতিমতো রাত্রে ঘুমোচ্ছেন।

শিল্পাঞ্চলের বি-জোন ইস্পাত কলোনির মধ্যে নেহরু স্টেডিয়াম সংলগ্ন, তিলক রোডে একটি বস্তি আছে। ওই বস্তিতে বসবাস করেন প্রায় শ’খানেক পরিবারের। বস্তিবাসীদের অভিযোগ ইদানিং রোজ রাত্রে বেলায় কোথা থেকে ভুতুড়ে ইট পরছে বস্তির ওপরে। রাত্রের আকাশ চিরে বস্তির ওপরে ধুপ ধাপ করে পড়তে থাকে বড় বড় আদলা ইট। এলাকাবাসীর অভিযোগ করেন বিষয়টি তারা দুর্গাপুর থানা ও বি-জোন আই সি কে জানিয়েছেন। একবার নাকি পুলিশের সামনেই ধুপ ধাপ করে পড়তে থাকে শুরু হয় ইট বস্তিতে। কিন্তু সবাই অবাক এইরকম ভুতুড়ে কান্ড কি করে ঘটছে। বস্তিবাসীরা জানিয়েছেন অত্যাধিক গরমের জন্য প্রায় মানুষই ঘরের বাইরে মেঝেতে চাটাই পেতে রাতটা কোনরকম পার করছেন গরমের হাত থেকে রেহাই পেতে। কিন্তু ভুতুড়ে এই ইটের ভয়ে এখন গৃহবন্দী হয়ে থাকছেন এই প্যাচপ্যাচে গরমে। তারা আরও অভিযোগ করেন যে তাদের বস্তিতে অনেক গৃহপালিত জন্তু আছে বা তাদের বাড়ীতে ছোট ছোট বাচ্চা আছে কোনভাবে যদি ওই ইটের গায়ে কেউ ঘায়েল হয় তাহলে প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে।

আজব এই ভুতুড়ে কান্ড জুড়ে সরগরম দুর্গাপুর ইস্পাত নগরী। বেশ কয়েকদিন ধরে চলতে থাকা এই রাত্রিকালীন ইট বৃষ্টির খোঁজখবর করতে বস্তিবাসীরা ইতিমধ্যেই রাত জাগরণ ও আশেপাশের এলাকায় ঘোরাঘুরি শুরু করছেন ও চিহ্নিত করার চেষ্টা করছেন কোথা থেকে এত ইট আসছে। বস্তির ভেতরে রাতের অন্ধকার চিরে গত কাল ঠিক রাত ৯ টা নাগাদ আবার পড়তে শুরু হয় ইট বৃষ্টি। এলাকার বস্তিবাসীরা বাড়ি থেকে ভয়ে বেরিয়ে এসে রাস্তার ওপরে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। খবর দেওয়া হয় পুলিশকে ও রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন নেতা নেত্রী কে। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী পুলিশ এবং লোকাল এলাকার নেতানেত্রীরা পৌঁছেছেন এলাকায় এবং বস্তিবাসীদের সঙ্গে কথা বলছেন। আজব এই ভুতুড়ে কান্ড গোটা ইস্পাত নগরী এখন আতঙ্কিত ও অসুরক্ষিত অনুভব করছে। ইস্পাত নগরীর বাসিন্দাদের দাবি অবিলম্বে দোষীদের কে গ্রেপ্তার করে এখনই বন্ধ করতে হবে এই রাত্রিকালীন ইট বৃষ্টি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here