অসম থেকে মামার বাড়ি বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার যুবতী

0
1032

সংবাদদাতা, মালদা:-

অসম থেকে মামার বাড়ি বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার হলেন এক যুবতী। অভিযোগ, পাকুয়াহাটে বেড়াতে যাওয়ার নাম করে তুলে নিয়ে গিয়ে পাঁচজন যুবক মিলে ওই যুবতীকে নেশাজাতীয় ইনজেকশন দিয়ে অচৈতন্য করে রাতভর গণধর্ষণ করে। বাড়ির লোকজন ওই যুবতীকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করে এদিন মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে। এই ঘটনায় মামার বাড়ির তরফে বামনগোলা থানায় পাঁচজন যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে হয়। পুলিশ তদন্ত শুরু করা হয়েছে। অভিযুক্তরা পলাতক। তাদের খোঁজ চলছে। ঘটনাটি মালদার বামনগোলা থানার কুপাদহ এলাকায়। জানা গিয়েছে, গুয়াহাটির লঙ্কা এলাকা থেকে মায়ের সঙ্গে বামনগোলার বোকাদহ গ্রামে মামা বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন ২০ বছরের ওই যুবতী। তিন-চারদিন মামাবাড়িতে কাটানোর পর মায়ের সঙ্গে ওই যুবতী গিয়েছিল বামনগোলারই কুপাদহ গ্রামে মামার ভগ্নিপতির বাড়িতে। অভিযোগ, কুপাদহ এলাকার নিত্য বিশ্বাস, বিকাশ বিশ্বাস সহ কয়েকজন যুবক পাকুয়াহাটে ঘুরতে যাওয়ার নাম করে মঙ্গলবার সকালে ওই যুবতীকে তুলে নিয়ে যায়।রাতভর যুবতীর খোঁজ পায়নি পরিবার।সকালে কুপাদহ থেকে যুবতীকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়ির লোকজন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। যুবতীর মামীর অভিযোগ, নিত্য, বিকাশ সহ কয়েকজন যুবক ভাগ্নিকে তুলে নিয়ে যায় এবং ভাগ্নির শরীরে নেশাজাতীয় ইনজেকশন দিয়ে বেহুশ করে রাতভর ওই চার-পাঁচ জন মিলে ভাগ্নিকে ধর্ষণ করে। বাড়ির তরফে বামনগোলা থানায় পাঁচজন যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে হয়। যুবতীর মামী এদিন মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বলেন, ঘুরতে এসে ভাগ্নির যেমন সর্বনাশ হবে তা আমরা ভাবতেই পারছিনা।আমি দোষীদের চরমতম শাস্তি চাই।পুলিশ দোষীদের গ্রেপ্তার করে শাস্তির ব্যবস্থা করুক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here