করোনাঃ ‘বন্দী’ দশা থেকে ঘরে ফিরতে চায় বাংলাদেশী পড়ুয়ারা

0
386

বিশেষ সংবাদদাতা, শান্তিনিকেতনঃ- করোনা ত্রাসে ফাঁকা হস্টেলে ‘বন্দী’ হয়ে থাকা বাংলাদেশী ছাত্র ছাত্রীরা স্বেচ্ছায় দেশে ফিরতে চেয়ে আবেদন জানালেন বিশ্বভারতী বিশ্ব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে।
পঠন পাঠন বন্ধ রেখে ইতিমধ্যেই ছাত্র ছাত্রীদের হস্টেল ছাড়ার নির্দেশ জারি করেছিল বিশ্বভারতী। তবে, বিদেশী ছাত্র ছাত্রীদের নিজের নিজের দেশে ফেরার সমস্যা থাকায় তাদের হস্টেলেই থাকতে বলা হয়। সেক্ষেত্রে ৯টি হস্টেলের ৬টি-ই খালি পড়ে থাকায় বিদেশী ছাত্র ছাত্রীদের দুটি হস্টেলে এনে একত্রে বসবাসের ব্যবস্থা করা হয়। গোড়ায় ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিশ্ব বিদ্যালয় বন্ধের নির্দেশিকা জারি করা হলেও, পরে তা ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়নো হয়। সময় সীমা বাড়ানোয় হস্টেলে কার্যতঃ ‘বন্দী’ হয়ে পড়া বাংলাদেশী ছাত্র ছাত্রীরা এবার দেশে ফিরতে চাইছেন। তাদের বক্তব্য- “হস্টেল থেকে বাইরে বেরনোর অনুমতি নেই। দু’বেলা একই খাবার দেওয়া হচ্ছে। এ ভাবে সারা দিন ঘরবন্দী হয়ে শুধু শুধু এখানে পড়ে থাকার চেয়ে দেশে ফিরে গেলেই ভাল”। বিশেষতঃ ভারত-বাংলাদেশের বেনাপোল ও পেট্রাপোল সীমান্ত গুলি দিয়ে সড়কযোগে দু’দেশের পরিবহন এখনো খোলা রয়েছে।
বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ জানায়, বিদেশী আবাসিক পড়ুয়ারা বাড়ি ফিরতে চাইলে তাদের ‘ফরেন স্টুডেন্টস সেল’এ আবেদন জমা করতে হবে। সেখানে স্পষ্ট উল্লেখ করতে হবে যে তারা স্বেচ্ছায় যাচ্ছে। যাত্রাপথে সমস্যা হলে দায় বিশ্বভারতীর নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here