বড়লোকের পকেট গরম করে, গরীবের বাজার ফেরানো যায় না এ দেশেঃ শুনুন সীতারমন

0
546

সুবর্ণ ন্যায়ধীশ

লোকে নিচ্ছে না। মাল তাই বিকোচ্ছে না। চাহিদার এই ঘাটতিই কিন্তু সঙ্কটের আসল কারন। কেন্দ্র সরকারের এই পরিস্থিতিতে আসু কর্তব্যটাই ছিল, সাধারন মানুষের আয় আর ক্রয় ক্ষমতা বাড়ানো। কিন্তু, হলটা কি বাস্তবে? কর্পোরেট দুনিয়ার সাশ্রয় বেড়ে গেল আর সাধারন, মধ্যবিত্ত থেকে উচ্চ – মধ্যবিত্তর ওপর লাগু থাকা হরেক রকম করের রকম ফের তো হলই না, ফলে, বাড়ল না তার ক্রয় ক্ষমতা। আরো মজার ব্যাপার হল- অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন কি করলেন? ব্যাঙ্ক থেকে যারা মোটা মোটা ঋন নিয়েছে – তাদের সুরাহা দিতে, সুদের হার হড় হড় করে নামিয়ে দিলেন, পাশাপাশি টেনে নামিয়ে আনলেন শিল্প গুলির ওপর চাপানো কর্পোরেট করের হার। উনি বা ওনার বুদ্ধি দাতারা যা বুঝেছেন, করেছেন। প্রশ্ন হল – অর্থমন্ত্রীর ওই দুটি পদক্ষেপই তো দেশে উৎপাদন বাড়াবে। অর্থাৎ, বাজারে আরো বাড়বে যোগান। কিন্তু, যোগানের সমস্যায় তো আদৌ ভুগছে না ভারতে অর্থনীতি। বরং অর্থনীতি রয়েছে সম্পূর্ণ উল্টোরথে সওয়ার হয়ে। যোগান চালাও চাহিদা দ্রুত পড়তির দিকে। উনি আবার যোগান বাড়িয়ে দিলেন। নীট ফল তবে কি হতে চলেছে? কাটবে অর্থনীতির মন্দার দশা? নাকি আরো হুড়মুড় করে ভেঙ্গে পড়বে তাসের ঘর।
পন্য না বিকোলে উৎপাদন জোর ধাক্কা খাবে। উৎপাদন ধাক্কা খেলে প্র্যতক্ষ, পরোক্ষ কর্মসংস্থানে আঘাত আসবে। বাড়বে বেকারত্ব।সাধারন নিয়মেই আছে, ইতিহাস স্বীকৃত বহু উদাহরন আছে – বাজার শুকিয়ে গেলে, বেকার বাড়লে, ক্ষমতাসীন সরকারকে রোজ নানান ফিকিরে মানুষকে ব্যস্ত রাখতে হয়, রোজ নয়া নয়া কৌশলে ঘুরিয়ে দিতে হয় মানুষের নজর। সমাজে, মানুষে – মানুষে তুলতে হবে বিভেদের হরেক দেওয়াল। মোচড় দিয়ে ঘোরাতে হবে দৃষ্টি। সীতারমনের মহাগুরুরা ঠান্ডা ঘরে বসে, দেশের বসে যাওয়া অর্থনীতির রথের চাকা টেনে তোলার বদলে বরং ব্যস্ত কোথায় কি ভাবে অন্য রথের রশি টানা যায় – তা নিয়ে। উগ্র জাতীয়তাবোধ, স্পর্শকাতর ইস্যু নিয়ে কটুকথা, এসবই মানুষকে ব্যস্ত রাখার কৌশল। সাম্প্রতিক কালে এ রকম বেশ কিছু “খেলা” ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে, দেখা যাচ্ছে। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ, বিক্রমের চাঁদে ল্যান্ডিং, হিন্দি চাপানো নিয়ে গা জোওয়ারি, নাগরিক পক্তী নিয়ে রোজ বাজার গরম করা। পঙ্গু অর্থনীতি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে বাজার। আর বাজার থেকে চোখ ফেরাতে হবে – চাইতে হবে চাঁদে!!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here