খেয়ে না উপবাসে কোনভাবে পালন করবেন পুজো

0
125

সঙ্গীতা চ্যাটার্জী (চৌধুরী),বহরমপুরঃ- সামনেই আসছে দুর্গা পুজো। সবাই যে যার মত অষ্টমীর অঞ্জলি দেবেন উপোস করবেন, কেউ আবার ষষ্ঠী থেকে দর্শমী অবধি উপোস রাখবেন, কিন্তু উপোস পালন করলেই কি শুধু ধর্ম হয়? ঘড়ি ঘন্টা সময় মেনে না খেয়ে থাকলে কি ভগবানের প্রতি মনের ভক্তি বোঝানো যায়? তাহলে তো গৌতম বুদ্ধ আর কোনদিনই বুদ্ধত্ব অর্জন করতেন না। গৌতম বুদ্ধ নিজে বলেছিলেন,‘অনাহারে সাধন মেলে না।’অন্যদিকে গৌতম বুদ্ধের জীবনী পড়লে আমরা দেখতে পাই, সুজাতার দান করা পায়েস খেয়েই ভগবান বুদ্ধ তাঁর বুদ্ধত্ব লাভ করে ছিলেন। শুধু না খেয়ে উপোস করায় যদি ধর্ম হতো তবে তো যারা দরিদ্র যারা খেতে পান না তারা অনেক বেশি ধর্ম পালন করেন।

চলুন আজ জেনে নিই এই প্রসঙ্গে ঠাকুর শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব কী বলেছেন?ঠাকুর শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব বলছেন,“ কিছু খেয়ে দেয় পুজো করলে কোন দোষ নেই। পেট খিদেয় চুঁই চুঁই করলে পুজো করবে কেমন করে? কেবল খাবারের দিকেই তো মন পরে থাকবে। কিছু খেয়েদেয় তারপর পুজোয় বসলে মন স্থির হয়।”

আসলে শ্রীশ্রী ঠাকুর ধর্ম রক্ষার ক্ষেত্রে কোন রকম ভন্ডামিকে কোনদিন প্রশ্রয় দেননি। পেটের ভেতর আনচান করছে মনের মধ্যে কখন খাবার খাব খাব ভাব আর উপোস করে বসে আছি এইভাবে ধর্ম পালন হয় না- এমনটাই ছিল শ্রী ঠাকুরের দেখানো পথে নির্দেশ। শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণদেব তাই বলেছেন, ‘মন মুখ এক করে ভক্তি করতে হয়। লোক দেখানো ভক্তিতে কোন ফল হয় না। ওসব পাটোয়ারী বুদ্ধি। লোক দেখানো ভক্তিভাব বেশিদিন থাকে না। সময় মতন স্বরূপ ঠিক বেরিয়ে পরে। তাই যা করবে মন থেকে করবে, রীতি এবং শ্রদ্ধার সঙ্গে করবে। যে অমনি করবে সেই হবে আসল ভক্ত।’

তাহলে পুজো উপোসের কি কোনো মূল্য‌ই নাই? এই প্রসঙ্গে শ্রী শ্রী ঠাকুর বলতেন, “পুজো কি জানিস? তাঁকে কি দেবো? সবই তো তাঁর। ভালো ভালো জিনিস যা দিবি তাঁর ছাড়া তো কারুর নয়।” এই বিষয়টি বোঝানোর জন্য, শ্রী শ্রী ঠাকুর একটি অসাধারণ গল্প বলতেন-“একবার একজন বড়লোক তার নিজের বাগানের বৈঠকখানায় গিয়ে বসে আছেন। বাগানের মালী টালি সব বাগানের কাজে ব্যস্ত রয়েছে। এমন সময় দারোয়ান এসে বললে,‘বাবু, আমি আপনার জন্য কাল থেকে একটা গাছ পাকা পেঁপে তুলে রেখে দিয়েছি। আপনি এটা নিন বাবু।’ বাবু কিন্তু জানেন, বাগান তাঁর, গাছও তাঁর, পেঁপেও তাঁর। কিন্তু ওই যে দারোয়ান কত শ্রদ্ধা করে মনে করে পেঁপেটি তার বাবুর জন্য রেখে তাঁকে দিলো, এটা কি বাবু দেখবেন না? দারোয়ানের শ্রদ্ধা কি বাবুর মন কে বিগলিত করবে না? বুঝবি পুজো করাও ঠিক সেই রকম।”

অর্থাৎ আপনি খেয়ে পুজো করুন অথবা উপবাস রেখে আপনার মনের ভাব যেন সব সময় শুদ্ধ থাকে। আপনি উপোস করে পুজো করলে তখনই সেটি ফল যুক্ত হবে যদি উপোস করা অবস্থায় খাবারের কথা চিন্তা না করে আপনি ভগবানের পাদ পদ্মের কথা চিন্তা করেন নচেৎ সকাল বেলায় স্নান করে পুষ্পাঞ্জলি দিয়ে খেয়ে নিন দিয়ে দিনভর মা দুর্গার নাম করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here