রাজ্যে উচ্চমাধ্যমিকের ফলপ্রকাশ, যুগ্মভাবে প্রথম শোভন ও রাজর্ষি

0
1039

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ মাধ্যমিকের পর এবার উচ্চমাধ্যমিকের পালা। আগাম দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার রাজ্যে প্রকাশিত হল উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী মঙ্গলবার অর্থাৎ ২৭ এ মে পশ্চিমবঙ্গ পর্ষদের তরফে প্রকাশ করা হলো উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল । পর্ষদ সূত্রে জানা গেছে, এবছর পরীক্ষা শুরু হয়েছিল ফেব্রুয়ারি মাসে এবং পরীক্ষা শেষ হওয়ার মাত্র ৭৪ দিনের মাথায় প্রকাশ করা হলো ফলাফল । এও জানা গেছে যে এবছর উচ্চমাধ্যমিকে ছাত্রীদের তুলনায় ছাত্র দের পাশের হার তুলনামূলক ভালো। তবে উচ্চমাধ্যমিকে এবছর যুগ্মভাবে প্রথম হয়েছে দুই পড়ুয়া । বীরভূম জেলা স্কুল থেকে ৪৯৮ নম্বর পেয়ে উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্য প্রথম স্থান অধিকার করেছে শোভন মন্ডল এবং একই নম্বর পেয়ে তার সঙ্গে যুগ্মভাবে প্রথম স্থানাধিকারী কোচবিহারের জেনকিনস স্কুলের ছাত্রী রাজর্ষি বর্মন। রাজ্যে ৪৯৬ নম্বর পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তন্ময় মাইকাপ (পূর্ব মেদিনীপুর), ঋতম নাথ (নদিয়া), স্বর্ণদীপ সাহা (কোচবিহার)সহ আরও অনেকে। এরা ছাড়াও রাজ্যে ভালো ফল করেছে অনেকেই। যেমন, বাঁকুড়া জেলা স্কুলের ছাত্র রম্যজিত সরকার। রাজ্যে মেধা তালিকায় দশম স্থানে থাকা রম্যজিতের কলা বিভাগে সারা রাজ্যে দ্বিতীয়। বড় হয়ে ইতিহাসের গবেষক হতে চায় রম্যজিত সরকার। একই স্কুল অর্থাৎ বাঁকুড়া জেলা স্কুলের ছাত্র মহাকাশ রক্ষিত। ৪৯২ নম্বর পেয়ে রাজ্যে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে সে। ভবিষ্যতে ডাক্তার হতে চায় মহাকাশ। উচ্চমাধ্যমিকে অলচিকি ভাষায় রাজ্যের মধ্যে সম্ভাব্য প্রথম হল কাঁকসার মলানদীঘির পরীক্ষার্থী বিশ্বনাথ মাড্ডি। উচ্চমাধ্যমিকে তার প্রাপ্ত নম্বর ৪৫৭। বাঁকুড়া বঙ্গ বিদ্যালয় স্কুলের কৃতি ছাত্র গৌরব সিংহ উচ্চমাধ্যমিকে মেধাতালিকায় অষ্টম স্থান অধিকার করেছে। ৪৮৮ নম্বর পেয়ে মেধা তালিকায় অষ্টম স্থানে রয়েছে সে। উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্যে নবম স্থানে পুরুলিয়া গভর্নমেন্ট গার্লস হাইস্কুলের ছাত্রী অস্মিতা চ্যাটার্জি। তার প্রাপ্ত নম্বর ৪৮৭। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এবছর উচ্চমাধ্যমিকে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল প্রায় ৮ লক্ষ ১৬ হাজার ২৮৩ জন। এবছর পরীক্ষা শুরু হয়েছিল ২৬ ফেব্রুয়ারি এবং শেষ হয় ১৩ মার্চ। পরীক্ষার ৭৪ দিনের মাথায় প্রকাশিত হল উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল।