একাধিক দাবিতে বিদ্যালয়ের মূল গেটে তালা অভিভাবকদের

0
740

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ ফের একাধিক দাবি নিয়ে বিদ্যালয়ের গেটে তালা ঝোলালেন পড়ুয়াদের অভিভাবকেরা। ঘটনা পুরুলিয়ার ঝালদা ১ নং ব্লকের ৩ নং সার্কেলের পুস্তি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। মঙ্গলবার সকাল থেকে বিদ্যালয়ের মূল গেটে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ায় পড়ুয়াদের পঠন-পাঠন হল বিদ্যালয়ের নিকট একটি দূর্গা মন্দিরের। এলাকাবাসীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে পুস্তি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল বন্ধ। শুধু তাই নয়, অভিভাবকদের অভিযোগ, দিনের পর দিন স্কুলের প্রধানশিক্ষক সময় মতো বিদ্যালয়ে আসেন না। নিজের ইচ্ছে মতো স্কুলে আসছেন। মিড ডে মিল বন্ধ থাকায় বিদ্যালয়ের রাঁধুনিদের মাসিক ভাতাই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ। এছাড়াও অভিভাবকদের অভিযোগ, স্কুলে কোনও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে পড়ুয়াদের অংশগ্রহন করা বা তাদের অংশগ্রহনে কোনোরকম উৎসাহ প্রদান করা হয় না। এইসমস্ত অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে স্থানীয় অভিভাবকেররা এক জোট হয়ে স্কুলের প্রধান গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। এইবিষয়ে ঝালদা ৩ নং সার্কেলের সার্কেল ইন্সপেক্টর সিদ্ধার্থ বাবুর কাছে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, যারা গেটে তালা ঝুলিয়েছে তাদের কাছেই বিষয়টি জানুন। কিন্তু শুধু ঝালদা ব্লক বলেই নয়, এর আগেও রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে মিড ডে মি নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। সরকারী তরফে কাঁচামালের যোগান ঠিক থাকলেও বার বার স্কুলগুলিতে কেন মিড ডে মিলে অনিয়ম ঘটছে সেবিষয়ে স্থানীয় সার্কেল ইন্সপেক্টরদের কাছেও কোনও তথ্য নেই। এমনকি তাঁরা সঠিকভাবে নিজেদের দায়িত্বও পালন করেন না বলে বিভিন্ন জায়গা থেকে অভিযোগ ওঠে। কিন্তু সরকারী মিড ডে মিল প্রকল্পের পরে রাজ্যে স্কুলগামী পড়ুয়াদের হার যে বেড়েছে তা সকলের জানা। কিন্তু এরকম পরিস্থিতিতে মাঝে মাঝেই বিভিন্ন সরকারী স্কুল ও অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলিতে মিড ডে মিল বন্ধ করে দিলে তার প্রভাব যে ফের স্কুলমুখী পড়ুয়াদের ওপর পড়তে পারে সেই আশ্নকাও অমূলক নয়।