পানাগড়ে আটকে পড়া ৩৫ জন পরিযায়ী শ্রমিককে বাড়ি পাঠানোর ব্যাবস্থা করলো কাঁকসা থানার পুলিশ

0
671

সংবাদদাতা, কাঁকসাঃ- পানাগড়ে আটকে পড়া ৩৫ জন পরিযায়ী শ্রমিককে বাড়ি পাঠানোর ব্যাবস্থা করলো কাঁকসা থানার পুলিশ। এদিন বেনারস থেকে কখনো পায়ে হেঁটে কখনো বা কোনো গাড়িতে চড়ে বাকি রাস্তা পায়ে হেঁটেই পানাগড় পৌঁছালো ৩৭ জন শ্রমিক। কাঁকসার হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন বাইপাসের আন্ডার পাশে পৌঁছাতেই খবর পেয়ে কাঁকসা থানার পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারে তারা বেনারস থেকে আসছে সকলেরই বাড়ি মালদায়। এর পর তাদের বাড়ি ফেরার জন্য বাসের ব্যাবস্থা করে কাঁকসা থানার পুলিশ।
অপর দিকে পরিযায়ী শ্রমিকদের জড়ো হবার খবর পেয়ে ছুটে আসে পানাগড়ের যুবকরা সন্দীপ রিঙ্কু মহল,সতবির সিং,মনমোহন সিং,বাবু সিং,অনুপ পান্ডে,হরমিত সিং,প্রেম সাউ,রাহুল সাউ, বিট্টু আনসারী,গুরমেজ সিং,শেখ রহিম,সনকি সিং,সন্দীপ সিং ও কবির সাউ।
তারা ওই শ্রমিকদের জন্য খাবারের আয়োজন করে তাদের জন্য খিচুড়ির ব্যাবস্থা করে।পাশাপাশি দুপুর বেলা ফের ওই জায়গায় আরও ১৬জন মালদার পরিযায়ী শ্রমিক দিল্লি থেকে কখনো পায়ে হেঁটে কখনো লরি চেপে মালদা যাবার জন্য পানাগড়ের হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন বাইপাশের আন্ডার পাশে এসে পৌঁছালে তাদের জন্যও খিচুড়ির ব্যাবস্থা করে পানাগড়ের যুবকের দল। এর পর পুলিশ ওই ১৬ জন পরিযায়ী শ্রমিকদেরও মালদা যাবার জন্য গাড়ির ব্যাবস্থা করে তাদের বাড়ি পাঠানোর ব্যাবস্থা করে।
সন্দীপ রিঙ্কু মহল বলেন এদিন তারা খবর পেয়েই যুদ্ধ কালীন তৎপরতায় প্রস্তুতি নেন শ্রমিকদের খাবারের ব্যাবস্থা করার জন্য। তারা রোজ অন্তত ৫০ জন করে পরিযায়ী শ্রমিকের খাবারের ব্যাবস্থা রাখছেন ও জলের ব্যাবস্থা রাখছেন যাতে কোনো দরিদ্র অসহায় পরিযায়ী শ্রমিক খালি পেটে না থাকে বা খালি পেটে তাদের বাড়ি যেতে হয়। পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য পানাগড়ের ওই যুবকরা যে ভাবে তড়িঘড়ি খাবারের ব্যাবস্থা করে তাতে খুশি তারা। বাড়ির উদ্যেশ্যে রওনা দেবার সময় সকল কে বিদায় জানিয়ে তারা বলে গেলেন পানাগড়ে এসে কাঁকসা থানার পুলিশের উপকার তারা ভুলবে না কোনদিন। পাশাপাশি পানাগড়ে যুবকদের আতিথেয়তার কথা গ্রামে গিয়ে বলবেন সকলকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here