এস এস সি বঞ্চিতদের সমস্যা সমাধানে মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপের দাবি

0
531

নিজস্ব সংবাদদাতা,কলকাতাঃ- স্কুল সার্ভিস কমিশনের দুর্নীতির প্রতিবাদে মেধাতালিকাভুক্ত বঞ্চিত চাকরীপ্রার্থীদের আন্দোলন তিন দফা মিলে আজ ৩৯০ দিনে পড়লো। অথচ মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যে স্কুল সার্ভিস কমিশনের দুর্নীতির কারণে বঞ্চিত ৩৯০ দিন অনশন ও অবস্হান বিক্ষোভরত মেধাতালিকাভুক্ত খেটে খাওয়া কৃষক, দিনমজুর পরিবারের ছেলেমেয়েদের কোনো সুরাহা করলেন না। যে প্রতিশ্রুতি তিনি নিজে ২০১৯ সালে প্রেস ক্লাবের সামনে দিয়েছিলেন স্কুল সার্ভিস কমিশনের দুর্নীতি সম্পর্কে অবগত হয়ে, তাও পূরণ করলেন না। তিনি বলেছিলেন মেধাতালিকাভুক্ত সকল প্রার্থীর চাকরি তিনি সুনিশ্চিত করবেন। তার উপর ভরসা রাখতে। তিনি কথা দিলে কথা রাখেন। তাহলে কেন ৩৯০ দিনেরও বেশী সময় ধরে ন্যায্য চাকরী চাইতে গিয়ে শীত,ঝড়, মহামারীর প্রচণ্ডতাকে উপেক্ষা করে অনশন ও অবস্হান বিক্ষোভ করতে হচ্ছে শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় মেধাতালিকায় উত্তীর্ণ হয়ে প্রথম দফায় ডাক পেয়েও চাকরি না পাওয়াদের? তাহলে কেনো তাদের বিকাশ ভবন, আচার্য সদন, তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী,বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী এমনকি মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে পুলিশের অত্যাচার সহ্য করেও ন্যায্য চাকরী চাইতে গিয়ে লাঞ্ছনার শিকার হতে হবে? মুখ্যমন্ত্রী দুর্নীতির কারণে বঞ্চিত সকল মেধাতালিকাভুক্ত চাকরী প্রার্থীর চাকরি সুনিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিলেও আজ ও কেনো পুজোর মরসুম গুলো তাদের রাস্তায় কাটাতে হয়? কেনো আত্মঘাতী হয় মেধাতালিকাভুক্ত বঞ্চিত প্রার্থী? কেনো কৃষক মেহেনতি মজদুর সমাজের ছেলেমেয়েরা পরীক্ষায় পাশ করেও দুর্নীতির শিকার হয়ে বঞ্চিতই থেকে যায়? কেনো দুর্নীতির বলি হতে হয় শিক্ষিত মেধার? ৩৯০ দিন ধরে অনশন ও অবস্থান আন্দোলনে সামিলরা আজ এই সব প্রশ্ন তুলে ধরেছেন।

বঞ্চিত মেধাতালিকাভুক্ত প্রার্থী লুবানা পারভিনের প্রশ্ন, যে স্কুল সার্ভিস কমিশন আজ আইন দেখাচ্ছে তারা কোন আইনে নিজের গেজেটকে লঙ্ঘন করে নাম্বার প্রকাশ না করে মেধাতালিকা প্রকাশ করে? কোন আইনে নিজের গেজেটে উল্লেখিত ১:১.৪ নিয়ম না মেনে নিয়োগ করে? কোন আইনে মেধাতালিকায় পেছনের সারিতে থাকা প্রার্থীকে আগে নিয়োগ দেয়? কোন আইনে এস এম এসে অবৈধ নিয়োগ দেয় গেজেট কে লঙ্ঘন করে? কোন আইনে অকৃতকার্য প্রার্থীরা চাকরি পায় আর কোন আইনে মেধাতালিকাভুক্ত প্রথম দফায় ডাক পেয়েও বঞ্চনার শিকার হয়?

আজও বঞ্চিত আন্দোলনকারীরা সমস্যা সমাধানের জন্য মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর পুনরায় হস্তক্ষেপ প্রার্থনা করছেন। তাদের আশা মুখ্যমন্ত্রী তাঁর প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ণ করে মেধাতালিকাভুক্ত বঞ্চিত প্রার্থীদের প্রতি সুবিচার করবেন। পাশাপাশি এর মাধ্যমে স্কুলে শিক্ষক সঙ্কটের সামাধান করবেন। স্কুলছুটদের স্কুলমুখী করে শিক্ষার মূলস্রোতে ফেরাতে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আন্দোলনকারী শিক্ষক পদপ্রার্থীরা অতি দ্রুত শিক্ষক নিয়োগের আর্জি রেখেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here